সাড়ে ১৭ হাজার অবৈধ প্রবাসীকে গ্রেফতার করেছে সৌদি সরকার

Img

সৌদি আরবের বিভিন্ন নিরাপত্তা সুরক্ষা বিভাগ জাওয়াজাত  এক সপ্তাহে ১৭ হাজার ৫৯৮ জন অবৈধ প্রবাসীকে গ্রেফতার করেছে। রেসিডেন্সি আইন, শ্রম আইন, বা সীমান্ত নিরাপত্তা আইন ভঙ্গের অপরাধে এসকল অবৈধ প্রবাসীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

বিগত সেপ্টেম্বর থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রেসিডেন্সি আইন, শ্রম আইন, বা সীমান্ত নিরাপত্তা আইন ভঙ্গের দায়ে মোট ১৭ হাজার ৫৯৮ জন অবৈধ প্রবাসীকে গ্রেফতার করেছে জাওয়াজাত এবং সৌদি আরবের নিরাপত্তা রক্ষা বাহিনী। এর মধ্যে হাজার ৫৯৪ জনকে রেসিডেন্সি আইন ভঙ্গের দায়ে, ১ হাজার ৭৭৫ জনকে শ্রম আইন ভঙ্গের দায়ে, এবং হাজার ২৯৯ জনকে সীমান্ত আইন ভঙ্গের দায়ে গ্রেফতার করা হয়েছে।

অবৈধ উপায়ে সীমান্ত পেরিয়ে সৌদি আরবে প্রবেশের সময় হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়েছে ২০২ জনকে। এর মাঝে ৪৮ শতাংশ ব্যক্তি ইয়েমেনি, ৪৯ শতাংশ ইথিওপিয়ান, এবং বাকি শতাংশ বিভিন্ন জাতীয়তার। এছাড়াও ২১ জনকে অবৈধ উপায়ে সৌদি আরব থেকে পালানোর সময় গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়াও অবৈধ প্রবাসীদের প্রবেশ বা পালানোতে সহায়তা করায়, তাদের পরিবহণে সাহায্য করায় তাদের আশ্রয় প্রদান করার অপরাধে ১২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সৌদি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, যেকোন ব্যক্তি যদি অবৈধ উপায়ে সীমান্ত অতিক্রম করা কোন প্রবাসীকে সাহায্য করেন, তাকে পরিবহণ করেন বা আশ্রয় প্রদান করেন, তবে তাদেরকে গ্রেফতার করে শাস্তি দেয়া হবে, পরিবহণে ব্যবহৃত যানবাহন জব্দ করা হবে, এবং আশ্রয় প্রদান করা বাড়ি বাজেয়াপ্ত করা হবে। এছাড়াও সাহায্যকারী ব্যক্তিকে সর্বোচ্চ ১৫ বছরের জেল এবং সর্বোচ্চ ১০ লাখ রিয়াল জরিমানার শাস্তি প্রদান করা হবে।

পূর্ববর্তী সংবাদ

সৌদিআরবে প্রবাসী গৃহকর্মীদের অ্যাপসের মাধ্যমে মালিক পরিবর্তনের সুযোগ

সৌদি আরবে প্রবাসী গৃহকর্মীদের আবশার আফ্রাদ নামে নতুন একটি এপ্লিকেশন সার্ভিস চালু করা হয়েছে। এই নতুন সেবার মাধ্যমে গৃহকর্মীরা তাদের স্পন্সর (মালিক) পরিবর্তনের অনুরোধ গ্রহণ বা বাতিল করতে পারবেন, অর্থাৎ নিজের নতুন স্পন্সর (মালিক) নিজে পছন্দ মত গ্রহণ এবং পরিবর্তন করতে পারবেন।

সৌদি গেজেটের প্রতিবেদনের বরাত জানা যে, নতুন এই সেবা অনুযায়ী, গৃহকর্মীরা তাদের বর্তমান স্পন্সর (মালিক) যদি ট্রান্সফার এর অনুমতি দেয়, শুধুমাত্র তখনই গৃহকর্মীরা নিজের স্পন্সর পরিবর্তন এর সুযোগ পাবেন। নতুন স্পন্সর আবশার আফ্রাদ এপ্লিকেশন এর মাধ্যমে অনুমোদন পাবার জন্য অপেক্ষা করবে, এবং গৃহকর্মী অনুমোদন গ্রহণ করার পরেই তার স্পন্সরশিপ (মালিকানা) পরিবর্তন হবে স্বয়ংক্রিয়ভাবে।

নতুন নিয়োগকর্তা শ্রমিকের সেবা স্থানান্তরের জন্য অনুরোধ করতে পারেন যদি তার প্রতিষ্ঠানের ভিসাপাওয়ার যোগ্য হয়। তাকে অবশ্যই মজুরি সুরক্ষা কর্মসূচির নিয়ম, চুক্তির ডকুমেন্টেশন এবংডিজিটালাইজেশন প্রোগ্রাম এবং স্ব-মূল্যায়ন কর্মসূচী মেনে চলতে হবে।

সৌদি আরবের মানবসম্পদ ও সামাজিক উন্নয়ন মন্ত্রণালয় সৌদি আরবের শ্রম খাতে উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছে, এবং পরিবর্তন এবং উন্নয়নের জন্য বিশেষত প্রাইভেট সেক্টরে প্রবাসী কর্মীদের চুক্তি উন্নয়ন এর জন্য সচেষ্ট ভূমিকা পালন করছে।

উল্লেখ যে, চলতি অর্থ বছরে ১৪ মার্চ থেকে প্রাইভেট সেক্টরে কর্মরত সকল প্রবাসী কর্মীদের জন্য এই নতুন সেবা এবং পরিবর্তিত শ্রম আইন চালু করা হয়েছে।

নতুন শ্রম আইন অনুযায়ী প্রবাসী কর্মীরা নিজের চাকুরী পরিবর্তন, স্পন্সর (মালিকানা) পরিবর্তন, এক্সিট এবং রিএন্ট্রি ভিসা ইস্যুসহ সকল কাজ আবশার এবং কিউয়া আ্যাপসের মাধ্যমে করা হয়ে থাকে খুবই সহজ এবং স্বল্প সময়ে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার