রিয়াদে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজে বিজয় দিবস পালিত

Img

দেশের পাশাপাশি সৌদি আরব রিয়াদে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ (বাংলাদেশ কারিকুলাম) ৪৯তম মহান বিজয় দিবস উদযাপন হয়েছে। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন রিয়াদ বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম কল্যাণ উইং এর কাউন্সিলর মো. মেহেদী হাসান।

সোমবার স্থানীয় সময় সকাল ৭টায় জাতীয় সংগীত পরিবেশন ও জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্যদিয়ে বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। শুরুতেই পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন এহসানুল রাফিদ আবিদ। মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া পরিচালনা করেন শিক্ষক হাবিবুর রহমান নোমানী।
 
দিবসটি উপলক্ষে প্রদত্ত রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন ৯ম শ্রেণী খ শাখার শিক্ষার্থী আসমা আবেদীন এবং ৮ম শ্রেণী ক শাখার শিক্ষার্থী এহসানুল রাফিদ আবিদ।
 
বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান মোসতাক আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ দূতাবাস রিয়াদের শ্রম কল্যাণ কাউন্সিলর মো. মেহেদী হাসান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অধ্যক্ষ আফজাল
হোসেন।
 
সিনিয়র শিক্ষক খাদেমুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের ভাইস চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম, ফিন্যান্স ডিরেক্টর আব্দুল হাকিম, কালচারাল ডিরেক্টর শফিকুল সিরাজুল হক, সিগনেটরি প্রকৌশলী গোফরান আহমেদ, ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশ রিয়াদের (আওয়ামী লীগ) সিনিয়র সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযাদ্ধা গোলাম মহিউদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম মাদবর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন রিয়াদ চ্যাপ্টারের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান চঞ্চল, বিদ্যালয় পরিচালনা সাব কমিটির সাবেক সদস্য আবুল কালাম আজাদ।
 
এসময় বিআইএসআর অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠাতা আরাফাত হাশেম দেওয়ান সহ স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকা, শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন। পরে দিবসটি উপলক্ষে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন অনুষ্ঠানে আগত অতিথিবৃন্দ।
পূর্ববর্তী সংবাদ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে হামলা-ভাংচুর

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদ আয়োজিত মহান বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে হামলা ও ভাংচুর চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। তবে এ ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি। সোমবার (১৬ ডিসেম্বর) সকাল নয়টার দিকে জেলা পরিষদ চত্বরে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার আনিছুর রহমান।

তিনি বলেন, আমরা সেসময় জেলা প্রশাসন আয়োজিত মহান বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে ছিলাম। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ঘটনা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শফিকুল আলম এ হামলার জন্য জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল-মামুন সরকারের অনুসারীদেরকে দায়ী করেছেন। গত বছরেও একই দিনে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তার ওপর হামলা করেছিলো।

শফিকুল আলম বলেন, আজ বেলা ১১টায় আলোচনা সভা ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনার আয়োজন করে জেলা পরিষদ। অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার আগেই সকাল নয়টার দিকে অনুষ্ঠানস্থলে এসে হামলা চালায় একদল যুবক।

হামলাকারীরা অনুষ্ঠান মঞ্চ এবং আগতদের বসার চেয়ার ভাঙচুর করে। এছাড়াও, তারা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি সম্বলিত ব্যানার ছিঁড়ে ফেলে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার