ফেনীতে করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে দুইজন মুক্তিযোদ্ধা রয়েছেন। এ দুইজনের বাড়ি সোনাগাজী ও আরেকজনের বাড়ি পরশুরাম উপজেলায়।

জানা যায়, সোমবার (২৯ জুন) রাতে মুক্তিযোদ্ধা দুলাল পাটোয়ারীর শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। তিনি সোনাগাজী উপজেলার সদর ইউনিয়নের বেচু পাটোয়ারী বাড়ির বাসিন্দা। তিনি বাসায় চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করে আসছিলেন।

একই ইউনিয়নের ছড়াইতকান্দি গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা জাহেদ চৌধুরীর জ্বর ও শ্বাসকষ্ট ছিল। সঙ্গে বমিও করছিলেন। চিকিৎসকের পরামর্শে বাসায় অবস্থান করছিলেন। সোমবার রাতে শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে বাড়িতে তার মৃত্যু হয়। তিনি ওই গ্রামের মুজিব আলী চৌধুরী বাড়ির বাসিন্দা।

সোনাগাজী সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শামসুল আরেফিন করোনার উপসর্গ নিয়ে দুই মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মঙ্গলবার দুপুরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের দাফন করা হয়েছে।

সোনাগাজী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অজিত দেব বলেন, তাদের পরিবারের কোনো সদস্যের মধ্যে করোনার উপসর্গ না থাকায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়নি। মঙ্গলবার (৩০ জুন) দুপুরে তাদের স্বাস্থবিধি মেনে গার্ড অব অনার দিয়ে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

এদিকে সোমবার রাতে পরশুরাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনার উপসর্গ নিয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। তিনি পরশুরাম পৌরসভার উত্তর কোলাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। তাকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

পরশুরাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইয়াছমিন আক্তার করোনার উপসর্গ নিয়ে এক নারীর মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে বলেন, স্বেচ্ছাসেবক টিম ওই নারীর মরদেহ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করেছে।