পাসপোর্ট জালিয়াতি: ৭১ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন

Img

বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তাদের নাম, পরিচয় ব্যবহার করে ভুয়া পাসপোর্ট ইস্যু করায় পাসপোর্ট অধিদপ্তরের সাবেক দুই পরিচালকসহ ৭১ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেবে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে কমিশন ওই চার্জশিটের অনুমোদন দিয়েছে।

জালিয়াতি করে পাসপোর্ট ইস্যুর অভিযোগে দুদক উপপরিচালক বেনজীর আহম্মেদ রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানায় মামলা করেছিলেন ২০১৬ সালের ১৯ জুলাই। সহকারী পরিচালক মো. শফি উল্লাহ মামলা তদন্ত করেন। শিগগির তিনি চার্জশিটটি আদালতে পেশ করবেন।

অভিযোগে বলা হয়, পাসপোর্ট অফিসের আট কর্মকর্তা পরস্পর যোগসাজশে অবৈধভাবে নিজেরা লাভবান হওয়ার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন সরকারি অফিসের কর্মকর্তাদের নাম-পরিচয় ব্যবহার করে দেশের বিভিন্ন স্থানের ৬৩ ব্যক্তির নামে ভুয়া পাসপোর্ট করিয়ে দিয়েছেন। এ ক্ষেত্রে ওই সরকারি কর্মকর্তাদের স্বাক্ষর জাল করা হয়েছে। এ ছাড়া জাল অনাপত্তিপত্রও (এনওসি) তৈরি করা হয়।

এসব পাসপোর্ট ব্যবহার করে বিভিন্ন জন বিদেশে গিয়েছেন। কেউ কেউ বিদেশে অবস্থান করছেন। ওই ভুয়া পাসপোর্ট ব্যবহারকারী চারজন বাংলাদেশি সম্প্রতি তুরস্কে গ্রেফতার হয়েছেন। জালিয়াতির বিষয়টি অবহিত হয়ে তুরস্ক সরকার তাদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠিয়েছে।

চার্জশিটভুক্ত আট আসামি হলেন— পাসপোর্ট অধিদপ্তরের সাবেক পরিচালক (বরখাস্ত) মুনসী মুয়ীদ ইকরাম, এসএম নজরুল ইসলাম, সাবেক সহকারী পরিচালক এসএম শাহ্‌জামান, উম্মে কুলসুম, নাসরিন পারভীন নূপুর, উচ্চমান সহকারী শাহজাহান মিয়া, সাবেক উচ্চমান সহকারী সাইফুল ইসলাম ও আনোয়ারুল হক। এ ছাড়া ভুয়া পাসপোর্ট গ্রহণকারী ৬৩ জনকে চার্জশিটে আসামি করা হয়েছে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার