মাত্র ১৩ বছর বয়সে বিয়ে হয় মরিয়ম নাবাতানজির। পরের বছরই জন্ম দেন যমজ সন্তানের। সেই শুরু, বিবাহিত জীবনের ২৬ বছরে একে একে জন্ম দিয়েছেন ৪৪ সন্তান! এর মধ্যে মারা গেছে ছয়জন। বর্তমানে ৩৮ সন্তান নিয়ে জীবন সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছেন স্বামীহীনা ৩৯ বছর বয়সী উগান্ডার এ নারী।

সম্প্রতি বিবিসির সাবেক সাংবাদিক কাসিম কায়িরা ওই নারীর সাক্ষাৎকার নেন। মরিয়ম জানান, বিয়ের সময় তার স্বামীর বয়স ছিল ২৭। আগে তার একাধিক স্ত্রী ছিল এবং তাদের কয়েক সন্তানও রয়েছে। সেই সন্তানদের নিয়ে শুরু হয় মরিয়মের সংসার।

৪৪ সন্তানের মধ্যে ছয়বার যমজ, চারবার তিনজন ও তিনবার চারজন করে সন্তান জন্ম দেন মরিয়ম। জীবিতদের মধ্যে মাত্র দুই সন্তান এককভাবে জন্ম নিয়েছেন। মরিয়ম জানান, ২৩ সন্তান হওয়ার পর তিনি গর্ভধারণ ঠেকাতে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন।

কিন্তু চিকিৎসকরা জানান, তার পক্ষে স্থায়ী গর্ভনিরোধ পদ্ধতি অবলম্বন সম্ভব নয়। ওই ব্যবস্থা নিতে গেলে তার জীবনই শঙ্কায় পড়বে। এরপর আর ওই চেষ্টা চালাননি তিনি। এত সন্তানকে খাইয়ে-পরিয়ে মানুষ করতে গিয়ে হিমশিম খেতে হলেও এতে অখুশি নন দরিদ্র মরিয়ম। তার ভাষায়, সন্তানরা সৃষ্টিকর্তার আশীর্বাদ।

প্রতিদিন প্রায় ২১-২২ কেজি খাবার জোগাড়ের পাশাপাশি সন্তানদের স্কুলে দিয়েছেন মরিয়ম। তাদের একেকজনকে শিক্ষক, চিকিৎসক, আইনজীবী বানানোর স্বপ্ন দেখেন তিনি।