৩০ ঘন্টা পর বাড়ি ফিরলেন ১৬ নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী

Img

খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকা সেই ১৬ জন নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী বাড়ি ফিরেছেন।

প্রায় ৩০ ঘন্টা পর শুক্রবার রাতে তাদের বাড়িতে যেতে দেওয়া হয়।

এর আগে জ্বর ও শ্বাসকষ্টে মারা যাওয়া রোগী মোস্তাহিদুর রহমান রুবেল (৪৫) করোনা আক্রান্ত হতে পারে আশঙ্কায় বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) দুপুর থেকে তাদেরকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। আইইডিসিআর থেকে ওই রোগীর করোনা পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ আসায় তারা মুক্ত হন। এসব স্বাস্থ্যকর্মী রুবেলের চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত ছিলেন।

শনিবার (২৮ মার্চ) খুমেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটের চিকিৎসক ডা. শৈলেন্দ্রনাথ বিশ্বাস বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘ওই নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা এখন থেকে তাদের বাড়িতে দুই সপ্তাহ সতর্কতামূলক হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকবেন।’

তিনি বলেন, ‘মারা যাওয়া ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করতে সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগের একটি টিম বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় খুলনায় এসেছিলেন। করোনা ভাইরাস শনাক্তে উপাদান সংগ্রহ করে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পরীক্ষা সম্পন্ন করার পর নিশ্চিত হওয়া গেছে যে তিনি করোনায় আক্রান্ত নন।’

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) দুপুর দেড়টায় খুমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জ্বর ও শ্বাসকষ্টে আক্রান্ত রুবেল মারা যান। তার বাড়ি মহানগরীর হেলাতলা এলাকায়।

পূর্ববর্তী সংবাদ

ঝিনাইদহে নিন্ম আয়ের মানুষের মাঝে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও খাবার বিতরণ

ঝিনাইদহে করোনাভাইরাসের আক্রমণ থেকে নিম্নবিত্ত শ্রমজীবী মানুষকে রক্ষার জন্য হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

শুক্রবার সকালে ঝিনাইদহ-১ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল হাই এর পক্ষ থেকে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করেন জেলা যুবলীগের নেতৃবৃন্দ।

শহরের শিল্পকলা একাডেমী চত্বর, পোষ্ট অফিস মোড়, পায়রা চত্বরে রিক্সা চালক দিনমজুরসহ নানা শ্রেনী পেশার মানুষের মাঝে এ স্যানিটাইজার বিতরণ করা হয়।

এসময় তাদের স্বাস্থ্য সচেতন নানা পরামর্শ প্রদাণ করেন নেতৃবৃন্দ। এসময় জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক শফিকুল ইসলাম শিমুল, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আওয়াল, যুবলীগ নেতা শরিফুল ইসলাম মুক্ত, হেলাল উদ্দিন, আবুল কাশেম শান্ত, ছাত্রলীগ নেতা তৌহিদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে শহরের বিভিন্ন এলাকার নিন্ম আয়ের মানুষের মাঝে চাল, ডাল, আলু ও সাবান বিতরণ করেছেন জেলা যুব মহিলা লীগ। বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে তাদের হাতে খাবার তুলে দেন জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড, সালমা ইয়াছমিন। খাবার পেয়ে সন্তুষ্ট প্রকাশ করেন তারা।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার