গত সোমবার পর্যন্ত বিগত ১০ দিনে ২৩ হাজার ৭১৫টি ট্যুরিস্ট ভিসা ইস্যু করেছে সৌদি আরব সরকার! ইতিমধ্যেই সৌদি আরব ট্যুরিস্টদের জন্য উম্মুক্ত হয়েছে, এবং এর ফলেই এই বিশাল পরিমান ভিসার ইস্যু করা হয়েছে।

সৌদি আরবের ট্যুরিজম এ ন্যাশনাল হেরিটেজ মন্ত্রণালয় বিশ্ব ট্যুরিজম দিবস পালনের পাশাপাশি সৌদি আরবে ট্যুরিস্ট ভিসা লঞ্চ করার ব্যাপারে ঘোষণা দিয়েছে।

মন্ত্রণালয় এর প্রজ্ঞাপন অনুসারে, সৌদি আরবের ট্যুরিস্ট ভিসা একবছরের জন্য ইস্যু করা হবে, এবং একই ভিসায় একাধিক বার প্রবেশ করা যাবে। প্রতিবার প্রবেশের পরে ৯০ দিনের জন্য সৌদি আরবে অবস্থান করা যাবে।

এছাড়াও, এই ট্যুরিস্ট ভিসায় এসে ওমরাহ হজ পালন করতে পারবেন ট্যুরিস্টরা।

সৌদি আরবের ট্যুরিস্ট ভিসা বিভিন্ন দেশে অবস্থিত সৌদি আরবের দূতাবাস থেকে নেয়া যাবে, এবং শর্তসাপেক্ষে অনলাইন থেকেও ভিসা গ্রহণ করা যাবে।

এছাড়াও, ইউরোপ, এশিয়া ও আমেরিকার ৪৯টি দেশের নাগরিকরা সৌদি আরবে পৌঁছাবার পরে অন এরাইভাল ভিসাও নিতে পারবেন।

এখন পর্যন্ত ৭,৩৯১ জন চাইনিজ নাগরিক সৌদি আরবের ট্রাভেল ভিসা নিয়েছে, এবং এর পর পরেই আছেন ইংল্যান্ডের ট্যুরিস্টরা, যারা প্রায় ৬,১৫৯টি ভিসা নিয়েছেন। প্রায় ২,১৩২ জন আমেরিকান ট্যুরিস্ট, এবং দুদেশের মধ্যে কূটনৈতিক টানাপোড়েন থাকার পরেও ১,৬১২ জন কানাডিয়ান ট্যুরিস্ট সৌদি আরবের ভিসা নিয়েছেন।

এছাড়াও মালয়েশিয়া ১,১০৭টি, ফ্রান্স ৭৪৪টি, জার্মানি ৫৫৭টি, রাশিয়া ৪৮৪টি, অস্ট্রেলিয়া ৪৭৬টি এবং কাজাখাস্তান ৪২১টি ভ্রমণ ভিসা ইস্যু করে নিয়েছে।

এই ইস্যু হওয়া ভিসাগুলো দিয়ে আগামী একবছরের মধ্যে যেকোন সময় ট্যুরিস্টরা সৌদি আরব ভ্রমণ করতে পারবেন।

এছাড়াও, নারী ট্যুরিস্টদের সৌদি আরব ভ্রমণ করার জন্য কোন পুরুষ মাহরাম এর প্রয়োজন হবে না!

২০৩০ সালের মধ্যে সৌদি আরবে ১০ কোটি ট্যুরিস্ট আনার পরিকল্পনা করছে সৌদি আরব। এছাড়াও, এই নতুন ট্যুরিস্ট ভিসার প্রণয়নের এবং ট্যুরিস্ট আসার ফলে নতুনভাবে প্রায় ১০ লাখ লোকের কর্মসংস্থান হবে বলে আশাবাদী সরকার।