সৌদি আরবে জাওয়াজাত মুকিম পোর্টালে নতুন বেশকিছু নতুন সার্ভিস চালু করেছে!

Img

সৌদি আরবের ডিরেক্টর জেনারেল অফ পাসপোর্ট (জাওয়াজাত) মুকিম পোর্টালে নতুন বেশকিছু সার্ভিস চালু করেছে! নতুন এই সার্ভিস এর মাধ্যমে নিয়োগদাতারা খুব সহজেই প্রবাসীদের সম্পর্কে সকল তথ্য খুজে বের করতে পারবেন, এবং প্রবাসীরাও নতুন বেশকিছু সার্ভিস এর মাধ্যমে সুবিধা লাভ করবেন!

সৌদি আরবের ডিরেক্টর জেনারেল অফ পাসপোর্ট এর তত্বাবধানে মুকিম পোর্টাল চালু রয়েছে। এই পোর্টাল এর মাধ্যমে প্রবাসীরা ইকামা রিনিউয়াল, এক্সিট এবং রিটার্ন ভিসা ইস্যু করা বা ক্যান্সেল করা, কোম্পানির করা স্পন্সর এর সর্বশেষ তথ্য দেখা, সকল কাজই প্রবাসীরা এই পোর্টালের মাধ্যমে করতে পারবেন।

কোন সন্দেহই নেই যে মুকিম পোর্টালের মাধ্যমে প্রবাসীরা যেমন সহজেই প্রয়োজনীয় সকল কাজ করে নিতে পারছেন, একইসাথে অনলাইনের মাধ্যমে এই কাজগুলো করে নেয়ার ফলে তাদের সময় বাচাতে পারছেন, এবং কোন ঝামেলা পোহাতে হচ্ছে না।

সম্প্রতি নিয়োগদাতাদের জন্যও মুকিম পোর্টালে বেশকিছু নতুন সার্ভিস যুক্ত করেছে জাওয়াজাত। নতুন একটি সার্ভিস, “মুকিম রিপোর্ট রিকুয়েস্ট” এর মাধ্যমে বিভিন্ন ব্যবসার মালিকগন তাদের প্রবাসী কর্মচারীদের সকল তথ্য সম্বলিত রিপোর্ট খুব সহজেই দেখতে পারবেন।

নিয়োগদাতারা বা ব্যবসার মালিকগন মুকিম রিপোর্ট রিকুয়েস্ট এর মাধ্যএ কোন প্রবাসীর সম্পর্কে সাধারন সকল তথ্য রিপোর্ট আকারে দেখতে পাবেন। এছাড়াও যেকোন প্রবাসীর কোন তথ্যের ব্যাপারে সরকারি কোন এজেন্সির সাথে যোগাযোগ করার প্রয়োজন হলেও এই পোর্টাল থেকে সহজেই তা করতে পারবেন নিয়োগদাতা।

পূর্ববর্তী সংবাদ

সৌদি আরবের প্রাইভেট সেক্টরগুলোকে সাহায্য করতে সরকারি উদ্যোগ

সৌদি আরবে করোনাভাইরাসের সময়কালে প্রাইভেট সেক্টর ও কোম্পানিগুলোকে সাহায্য করার জন্য ইতিমধ্যেই সরকার বেশকিছু উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। গতকাল ২ জুলাই সৌদি আরবের পবিত্র মসজিদদ্বয় এর অভিভাবক কিং সালমান এই উদ্যোগগুলোকে আরো বৃদ্ধি করার নির্দেশ দিয়েছেন।

সৌদি আরবের প্রাইভেট সেক্টরগুলোকে সাহায্য করতে সরকারি উদ্যোগ বৃদ্ধি পেলো!

বাড়তি যেসকল উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে সেগুলো হচ্ছেঃ

সৌদি আরবের বিভিন্ন প্রাইভেট সেক্টরে যেসকল কর্মচারী করোনাভাইরাসের কারণে ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন, তাদেরকে আনএমপ্লয়মেন্ট ইনস্যুরেন্স এর মাধ্যমে সহযোগিতা করা।

নিয়োগ সংক্রান্ত সকল জরিমানা মওকুফ করা।

প্রাইভেট সেক্টরের যেকোন ক্ষেত্রে সাসপেনশন জারি থাকলে সেটাকে তুলে দেয়া।

সৌদি আরবের নিতাকাত প্রোগ্রামের মাধ্যমে সকল এন্টারপ্রাইজে কর্মরত সকলের হিসেব করা।

মহামারি চলাকালীন সময়ে ওয়েজ প্রোটেকশন এর উপরে সাসপেনশন তুলে নেয়া।

বড় কোম্পানিগুলোর সর্বক্ষন কাজ চালু রাখার অনুমতি দেয়া

আমদানীকৃত পণ্যের শুল্ক আদায় ৩০ দিনের জন্য স্থগিত করা।

ভ্যাট এর পেমেন্ট বর্তমান সময়ের জন্য স্থগিত করা।

ভ্যাট রিফান্ড রিকুয়েস্ট এর পেমেন্টগুলো দ্রুত প্রসেস করা।

এক্সিট এবং রিএন্ট্রি ভিসার মেয়াদ এক মাস, এবং প্রয়োজন অনুসারে আরো এক মাস বৃদ্ধির সুবিধা দেয়া।

ব্যবসার মালিকদের দুই মাসের জন্য জন্য ভ্যাট, ইনকাম ট্যাক্স, এবং যাকাত দেয়া থেকে স্থগিত থাকার সুযোগ দেয়া।

এখন পর্যন্ত সৌদি সরকার ব্যবসায়ীদের এবং প্রাইভেট সেক্টরের কোম্পানিগুলোকে করোনা চলাকালীন সময়ে ক্ষতির হাত থেকে সহযোগিতা করতে ১৪২ টি উদ্যোগ নিয়েছে। সকল উদ্যেগে সরকারের মোট খরচ হচ্ছে ২১৪ বিলিয়ন সৌদি রিয়াল।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার