সৌদি আরবে আটকে আছেন ২২জন ওমরাহ হজ্ব যাত্রী

Img

বাংলাদেশ থেকে গত ২৬শে ফেব্রুয়ারী সৌদি আরবে ওমরাহ হজ্ব পালন করতে এসে ২২ জন ওমরাহ হজ্বযাত্রী জেদ্দায় আটকে আছেন।

কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার উপজেলা সদরের ২২জন ওমরাহ হজ্ব যাত্রী গত ২৬/২/২০ইং সৌদি এয়ারলাইনসের sv 802 ফ্লাইটে ওমরাহ হজ্ব পালন করতে আসেন। তাদের গত ১৪/৩/২০ইং সৌদি এয়ারলাইনসের sv 802 ফিরতি ফ্লাইট ছিল।

কিন্তু শরীকা মক্কা থেকে ১০/৩/২০ইং জানানো হয় ফ্লাইটটি ১৪/৩/২ইং এর পরিবর্তে ১৫/৩/২০ইং সৌদি সময় বিকাল ৩.৩০ মিনিট ফ্লাইট দেয়া হয়। সে অনুযায়ী ১৫/৩/২০ইং সকাল ১০টায় জেদ্দা এয়ারপোর্টে উপস্থিত হলে তাদের দুপুর ১২টায় মাল বুকিং দিতে বললে তারা মাল বুকিং দিতে ভিতরে প্রবেশ করলে জানানো হয় ফ্লাইটটি বাতিল।

তৎক্ষনাৎ ওজারাতুল হজ্বকে বিষয়টা জানালে তারা ১৭/৩/২০ ইং সৌদি সময় রাত ৩.৩০ মিনিট sv 808 সৌদি এয়ারলাইনসের একটি টিকিট ইস্যু করে তাদেরকে একটি হোটেলে পাঠানো হয়।

১৬/৩/২০ইং বিকালে ওজারাতুল হজ্ব এর পক্ষ থেকে জানানো হয় রাতের sv808 সহ সকল ফ্লাইট বাতিল। এ অবস্থায় বাংলাদেশ থেকে জানানো হয় সৌদি সময় ১৭/৩/২০ইং সকাল ৭.৩০ মি. বিমান বাংলাদেশ এর একটি ফ্লাইট আসবে।

সাথে সাথে জেদ্দাস্থ নাখেল সেন্টার অবস্থিত বাংলাদেশ বিমান এয়ারলাইনসের অফিসে যোগাযোগ করা হলে তারা জানান সব টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। জানাগেছে বাংলাদেশ টাকায় প্রায় ৩৫০০০/= করে টিকিট কেটে কিছু ওমরাহ হজ্বযাত্রী ও আকামাদারীদের নিয়ে ফ্লাইটটি বাংলাদেশে পৌঁছে।

এর পর থেকে আর কোন ফ্লাইট না থাকায় তারা বিভিন্ন স্থানে আটকে যায়। ওজারাতুল হজ্ব কোম্পানি থাকার জন্য হোটেল ব্যাবস্থা করলেও তাদের অনেকটা কষ্টের মাঝেই সেখানে থাকতে হচ্ছে। ২২জনকে ৪টি রুম দেয়া হয়। ২২ জনের মধ্যে ৯ জন পরুষ,১১জন মহিলা ও ২ জন শিশু রয়েছেন।

খাবারের কোন ব্যাবস্থা নেই। বাংলাদেশি মোয়াল্লিম মাওলানা মাইনুদ্দীন সরকার জানান, জেদ্দায় অবস্থিত বাংলাদেশ মিশনের কাউন্সিলর মাকসুদ সাহেবের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি হজ্ব বিষয়ক কর্মকর্তা হাসান সাহেবের সাথে যোগাযোগ করতে পরামর্শ দেন।

যোগাযোগ করলে তিনি সকল তথ্যাদি নেন এবং এ বিষয়ে সহযোগিতার আশ্বাস দেন।কিন্তু অদ্যবদি তাদের কোন সহযোগিতা পাওয়া যায়নি। 
ওমরাহ হজ্বযাত্রী কাঠ ব্যাবসায়ী বাবুল মিয়া জানান, তার ৩ বছরের শিশু সন্তান রেখে স্বামী -স্ত্রী ওমরাহ করতে আসেন। 

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার