সিলেটের এক সড়কে পৃথক ৩ দুর্ঘটনায় নিহত ৯

Img

সিলেট-তামাবিল মহাসড়কে গতকাল রোববার সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত পৃথক তিনটি সড়ক দুর্ঘটনায় ৯ জন প্রাণ হারিয়েছেন। এদের মধ্যে একই পরিবারের ৪ মাসের শিশুসহ ৪ জন নিহত হয়েছেন। যাদের মধ্যে ৫ জন রয়েছেন জৈন্তাপুরে পাখিবিল এলাকার, ২ জন  গোলাপগঞ্জ উপজেলার, ১ জন করে কানাইঘাট উপজেলার ও জৈন্তাপুরের দরবস্ত এলাকার রয়েছেন।

রোববার সকাল ৬টায় ট্রাক-সিএনজি অটোরিকশা সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত হওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে ফের সিলেট-তামাবিল সড়কে দুর্ঘটনা ঘটে। আবারও ঘাতক ট্রাক কেড়ে নেয় আরও তিনজনের প্রাণ। আহত হয়েছেন আরও দুইজন। রাত ১১ টার দিকে বটেশ্বরের জালালনগর এলাকায় রাস্তা পারাপারের সময় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় মারা যান এক নৈশ্যপ্রহরী। একদিনে পৃথক এ তিন সড়ক দুর্ঘটনায় ৯ জনের প্রাণহানি দেখলো সিলেটবাসী।

এবিষয়ে জৈন্তাপুর থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) গোলাম দস্তগীর আহমেদ জানান, রোববার পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ৯ জন নিহত হয়েছেন এবং কয়েকজন আহত হয়েছেন। এসব ঘটনায় মামলা হয়েছে। জৈন্তাপুরের দরবস্তে সড়ক দুর্ঘটনার ঘটনায় ট্রাক চালকে আটক করা হয়েছে। বাকিদের আইনের আওতায় আনার চেষ্টা অব্যহত রয়েছে।

জানা যায়, রোববার সকালে সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের জৈন্তাপুরের ফেরিঘাট নামক স্থানে যাত্রীবাহী একটি সিএনজি অটোরিকশা হঠাৎ মহাসড়কে উঠলে দ্রুতগামী একটি ট্রাক অটোরিকশাকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে চারজন ও হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরও একজনের মৃত্যু হয়। এর মধ্যে একই পরিবারের ৪ মাসের শিশুসহ ৪ জন রয়েছেন।

নিহতরা হলেন- পাখিবিল এলাকার মৃত আরব আলীর ছেলে হোসেন আহমদ (৩৫), জামাল মিয়ার স্ত্রী সাফিয়া বেগম (২৯), জামাল মিয়ার মেয়ে সাদিয়া (৭), জামাল মিয়ার ছেলে শাহাদাত (৪ মাস), মৃত হাফিজ মিয়ার স্ত্রী হাবিবুন্নেসা (৩৩)।

অপরদিকে, একই দিন রাত ১১ টায় সিলেটের সদর উপজেলায় বটেশ্বরের জালালনগর এলাকায় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় লাকি আহমদ (৩৭) নামে এক নৈশ্যপ্রহরী নিহত হয়েছেন।

এদিকে, একটি ইট বুঝাই ট্রাক জাফলং যাওয়ার পথে জৈন্তাপুর উপজেলার দরবস্ত বাজারে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মোটরসাইকেল গ্যারেজে ঢুকে যায়। এতে গ্যারেজের মেকানিক সহ সেখানে বসা অপর দুইজন মোট ৩ জন ঘটনাস্থলেই নিহত হন। এছাড়া আরও দুজন আহত হন।

নিহতরা হলেন- কানাইঘাট উপজেলার নয়াগ্রাম পশ্চিম এলাকার মৌলভী সহরউল্লার ছেলে মিনহাজ উদ্দিন সুলতান (২৮) গোলাপগঞ্জ উপজেলার ফুলবাড়ি এলাকার মছনুর রহমানের ছেলে সুহেল আহমদ (৩০), জৈন্তাপুর উপজেলার বারোগাত্তি এলাকার তাজুল ইসলামের ছেলে সুমন আহমদ (১৮)।

এদিকে, দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারের পাশে রয়েছে সিলেট জেলা প্রশাসন। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দেয়া হয়েছে আর্থিক অনুদানও।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার