সিনহা হত্যায় ওসি প্রদীপ-লিয়াকতসহ ১০ জনের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে

Img

কক্সবাজারের টেকনাফে মেরিন ড্রাইভে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খানের নিহতের ঘটনায় টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাস, পুলিশ পরিদর্শক মো. লিয়াকত ও এসআই নন্দদুলাল রক্ষিতসহ ১০ আসামিকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটি।

সোমবার (১৭ আগস্ট) বেলা ১১টা থেকে কক্সবাজার কারাগারে থাকা এসব আসামিদের বিকেলে পর্যন্ত জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করবেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। 

জিজ্ঞাসাবাদে তদন্ত কমিটির প্রধান হিসেবে আছেন চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মিজানুর রহমান, সদস্য হিসেবে আছেন চট্টগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি মোহাম্মদ জাকির হোসেন, মোহাম্মদ শাজাহান আলী ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রতিনিধি সদস্য লেফটেন্যান্ট কর্নেল সাজ্জাদ।

এর আগে গতকাল রবিবার সকালে মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে টেকনাফের বাহারছড়া তদন্তকেন্দ্রের অদূরে গণশুনানি হয়। গণশুনানিতে প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে সরাসরি হত্যার দিনের ঘটনা শোনের তদন্ত কর্মকর্তারা।

মেজর সিনহা হত্যার ঘটনায় গত ২ আগস্ট স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ ৪ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন। এরপর গণশুনানির জন্য ১২ আগস্ট সন্ধ্যায় গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়।

গত ৩১ জুলাই রাতে টেকনাক বাহারছড়া চেকপোস্টে নিরাপত্তা চৌকিতে তল্লাশির সময় পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান।

হত্যাকাণ্ডের ৫ দিন পর ৫ আগস্ট সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌসী বাদী হয়ে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্টেট আদালতে এসআই লিয়াকত, ওসি প্রদীপ কুমার দাসসহ ৯ পুলিশের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

শুরু থেকেই মামলাটির তদন্তভার দেয়া হয় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়নকে (র‌্যাব)। শুরুতে র‌্যাব-১৫ এর সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) জামিলুল হক মামলাটির তদন্ত করছিলেন। এরইমধ্যে দুদিন আগে জামিলুলের জায়গায় (আইও) র‌্যাব-১৫ কক্সবাজার ব্যাটালিয়ানের সহকারী পরিচালক এএসপি খাইরুল ইসলামকে তদন্তভার দেয়া হয়।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার