সাবধান ওয়াই-ফাইয়ের ফাঁদ থেকে

অনলাইন ডেস্ক : ডিসেম্বর ১, ২০১৮

মোবাইলে ইন্টারনেট ডাটা থাকার পরও রেস্তোরাঁ বা বিভিন্ন দোকান ও অফিসের বিনা মূল্যের ওয়াই-ফাই সেবা ব্যবহার করেন অনেকে। কারণ বিনা মূল্যের ওয়াই-ফাইয়ে মোবাইল ডাটা নিয়ে টেনশন করতে হয় না। মনের আনন্দে ঘুরে বেড়ানো যায় ইউটিউবে। ক্রেতাদের খুশি করতে ওয়াই-ফাইয়ের পাসওয়ার্ড ব্যানার আকারে ঝুলিয়েও রাখে অনেক প্রতিষ্ঠান।

কিন্তু কথায় আছে না—সস্তার বারো অবস্থা! উন্মুক্ত এই নেটওয়ার্ক ব্যবহার খুব বেশি নিরাপদ নয়। বিশেষ করে এসব উন্মুক্ত নেটওয়ার্কে ব্যাংকিং ও ক্রেডিট কার্ডের তথ্য বিনিময় করলে সেগুলো হাতিয়ে নিতে পারে হ্যাকাররা। পরে ভুয়া পাসওয়ার্ড দিয়ে ব্যবহারকারীর অগোচরেই সেগুলো নিয়ন্ত্রণ করতে পারে তারা। তবে গুরুত্বপূর্ণ যেসব স্থানে অন্যের কাছ থেকে ওয়াই-ফাইয়ের পাসওয়ার্ড জেনে নিতে হয় সেখানকার ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্ক তুলনামূলক নিরাপদ। বিনা মূল্যের ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্ক ব্যবহারের ক্ষেত্রে বেশ কিছু সতর্কতা মেনে চলা প্রয়োজন।

— বিনা মূল্যের ওয়াই-ফাই পাসওয়ার্ড দিয়ে বিভিন্ন সাইট, ইউটিউব, ফেইসবুক বা অনলাইন নিউজ পোর্টালগুলোতে ঢুঁ মারলেও অনলাইন ব্যাংকিংয়ের কাজ করা উচিত নয়।

— ডিভাইসে থাকা ব্যক্তিগত বিভিন্ন ফাইল, ছবি বা ভিডিও নিরাপদে রাখতে ফাইল শেয়ারিংয়ের অপশন অবশ্যই বন্ধ রাখা উচিত। — ডিভাইসে অবশ্যই অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার ইনস্টল করতে হবে।

— খুব প্রয়োজনে বিনা মূল্যের ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্ক কাজে লাগিয়ে ব্যাংকিং করতে হলে অবশ্যই ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক (ভিপিএন) ব্যবহার করতে হবে। এর ফলে যেকোনো ধরনের ফিল্টারিং বা ওয়েবসাইট ব্লকিং সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।

— ওয়াই-ফাই অপশন চালু থাকলে ডিভাইসের চার্জ শেষ হয়ে যায় খুব দ্রুত। তাই চার্জ ধরে রাখতে ওয়াই-ফাই ব্যবহারের পর অপশনটি বন্ধ রাখা উচিত।

তথ্য:

বিভাগ:

প্রকাশ: ডিসেম্বর ১, ২০১৮

পড়েছেন: 289 জন

মন্তব্য: 0 টি