সাতক্ষীরা দিবা নৈশ কলেজে নবীন বরণ ও শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবের উদ্বোধন

Img

‘এসো নবীন এসো উৎসবে, এসো শিক্ষায়, এসো আনন্দের এই ঝর্ণাধারায়’ এই কবিতার চরণকে সামনে রেখে সাতক্ষীরা দিবা নৈশ কলেজের নবীন বরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) সকালে কলেজ প্রাঙ্গণে সাতক্ষীরা দিবা নৈশ কলেজের আয়োজনে কলেজের অধ্যক্ষ এ. কে. এম সফিকুজ্জামানের সভাপতিত্বে নবীন বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সরকারের ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় ও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য গণমানুষের প্রাণের নেতা সাতক্ষীরা সদর আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি।

এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি রবি বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের দক্ষতা মনোনশীলতার সহিত কাজে লাগিয়ে এ জেলার সম্মান উজ্জ্বল করতে হবে। পড়াশোনার পাশাপাশি নিজেদের একজন সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। শিক্ষা গ্রহণ করে দেশ ও জাতির কল্যাণে আত্মনিয়োগ করতে হবে। জঙ্গী, মাদক ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সোচ্ছার হতে হবে। কলেজ ক্যাম্পাসকে একটি সুন্দর ক্যাম্পাসে রূপ দিতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার আহবান জানান তিনি।’

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, দিবা নৈশ কলেজ পরিচালনা পরিষদের সদস্য ও সমাজসেবক ডা. আবুল কালাম বাবলা, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক শেখ নুরুল হক, বিশ্বনাথ ঘোষ, দিবা নৈশ কলেজের উপাধ্যক্ষ ময়নুল হাসান, জেলা বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি মকসুমুল হাকিম, দিবা নৈশ কলেজের শিক্ষক পর্ষদ সম্পাদক মোশতাক আলী প্রমুখ। অপরদিকে নবীন বরণ অনুষ্ঠান শেষে কলেজ ক্যাম্পাসের তৃতীয়তলায় শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ও একাদশ শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের ফুল দিয়ে বরণ করা হয় এবং কলেজের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হয় মনোঙ্গ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এসময় কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন দিবা নৈশ কলেজের ক্রীড়া শিক্ষক ও ফিফা রেফারী তৈয়েব হাসাব বাবু।

পূর্ববর্তী সংবাদ

ঈদ উপলক্ষে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু ২৯ জুলাই

আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হচ্ছে ২৯ জুলাই। চলবে ২ আগস্ট পর্যন্ত।

রেলওয়ে সূত্র জানায়, রাজধানীর কমলাপুরসহ পাঁচটি স্থানে প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে ৪টা পর্যন্ত টিকিট বিক্রি করা হবে। একজন যাত্রী ৪টির বেশি টিকিট সংগ্রহ করতে পারবেন না।

কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে বিক্রি হবে যমুনা সেতু হয়ে সমগ্র পশ্চিমাঞ্চলগামী আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট, বিমানবন্দর স্টেশন থেকে দেওয়া হবে চট্টগ্রাম ও নোয়াখালীগামী সকল আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট, তেজগাঁও স্টেশন থেকে বিক্রি করা হবে ময়মনসিংহ ও জামালপুরগামী ট্রেনের টিকিট, বনানী স্টেশন থেকে বিক্রি হবে নেত্রকোনাগামী মোহনগঞ্জ ও হাওর এক্সপ্রেসের টিকিট ও রাজধানীর ফুলবাড়িয়া (পুরোনো রেলভবন) থেকে সিলেট ও কিশোরগঞ্জগামী ট্রেনের টিকিট।

রেলওয়ে ঈদ ব্যবস্থাপনা নিয়ে বুধবার রেলভবনে বৈঠক করা হয়েছে। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ২৯ জুলাই থেকে রেলওয়ের আন্তঃনগর ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে। ২ আগস্ট পর্যন্ত এই অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হবে।

রেলওয়ে সূত্র জানায়, ঈদুল আজহা উপলক্ষে বাংলাদেশ রেলওয়ের ৮ জোড়া বিশেষ ট্রেন চলাচল করবে। ট্রেনগুলো হলো-দেওয়ানগঞ্জ ঈদ স্পেশাল (১ জোড়া): ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ-ঢাকা, চাঁদপুর ঈদ স্পেশাল (২ জোড়া) :

চট্টগ্রাম-চাঁদপুর-চট্টগ্রাম, মৈত্রীর রেক দিয়ে খুলনা ঈদ স্পেশাল : খুলনা-ঢাকা-খুলনা, ঈশ্বরদী ঈদ স্পেশাল : ঢাকা-ঈশ্বরদী-ঢাকা, লালমণি ঈদ স্পেশাল : লালমনিরহাট-ঢাকা-লালমনিরহাট, শোলাকিয়া স্পেশাল-১: ভৈরববাজার-কিশোরগঞ্জ-ভৈরববাজার, শোলাকিয়া স্পেশাল-২: ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ- ময়মনসিংহ, পবিত্র ঈদের দিন।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার