সাতক্ষীরায় ধানক্ষেতে মিলল শিশুর লাশ

Img

সাতক্ষীরায় ধানক্ষেত থেকে হৃদয় মণ্ডল (৯) নামে এক শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার সকালে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার শিবপুর ইউনিয়নের ঝিটকা গ্রামের নূর মোহাম্মদের মালিকানাধীন ধানক্ষেত থেকে এ লাশ উদ্ধার করা হয়। স্বজনদের অভিযোগ, তাকে হত্যা করা হয়েছে।

নিহত হৃদয় মণ্ডল ওই গ্রামের বিকাশ মণ্ডলের ছেলে। সে ঝিটকি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র ছিল।

পিতা বিকাশ মণ্ডল জানান, তার সন্তান সম্ভবা স্ত্রী অঞ্জনা মণ্ডল আড়াই মাস আগে দেবহাটা উপজেলার গাজীরহাটে যায়। এক মাস পর তার দ্বিতীয় সন্তান হওয়ায় বর্তমানে সেখানে অবস্থান করছে। তার বড় ছেলে হৃদয় পার্শ্ববর্তী শিক্ষক প্রসেনজিৎ মণ্ডলের কাছে প্রাইভেট পড়ে চারটার দিকে বাড়ি ফেরে। এরপর কয়েকটি পেরেক কেনার জন্য সে একই গ্রামের ইসমাইল হোসেনের বাড়ি যায়। ইসমাইলের ছেলে ঝিটকি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র মাসুদের কাছ থেকে কয়েকটি পেরেক কিনে সে আর বাড়ি ফেরেনি। সন্ধ্যায় প্রসেনজিতের কাছে আবারো পড়তে যাওয়ার কথা থাকলেও সেখানে যায় নি হৃদয়। সম্ভাব্য সকল স্থানে রাতভর খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পাওয়া যায় নি। এক পর্যায়ে স্থানীয় সৎসঙ্গ মন্দির ও ঝিটকি মসজিদ থেকে এ বিষয়ে মাইকিং করা হয়।

পরে ইসমাইল হোসেনের স্ত্রী মাফিয়া শামুক তুলতে গিয়ে ধানক্ষেতে ভাসমান অবস্থায় হৃদয়ের লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয়দের খবর দেন। স্থানীয়দের মাধ্যমে বিকাশ মণ্ডল ছেলের লাশের সন্ধান পান।

মাফিয়া খাতুন জানান, প্রতিদিনের মতো তিনি শুক্রবার সকালে হাঁসের জন্য শামুক তুলতে বাড়ির পাশের ধানক্ষেতে যান। এসময় হৃদয়কে ধানক্ষেতের ওপর পানিতে ভাসমান অবস্থায় দেখে স্থানীয়দের খবর দেন তিনি।

ইসমাইলের ছেলে মাসুদ হোসেন জানান, তার থেকে কয়েকটি পেরেক কিনে হৃদয় কোথায় গিয়েছিল, সেটা সে জানে না।

শিবপুর ইউপি সদস্য মহাদেব সরকার বলেন, ‘ধারণা করা হচ্ছে, হৃদয়কে হত্যার পর লাশ ধানক্ষেতে ফেলে দেওয়া হয়েছে।’

এ বিষয়ে সাতক্ষীরা সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এসপি) মীর্জা সালাহ্ উদ্দিন জানান, তিনি ঘটনাস্থলে গিয়েছেন। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে এই মূহুর্তে কিছু বলা সম্ভব নয়। তবে এ বিষয়ে ইসমাইল হোসেনের স্ত্রী মাফিয়া খাতুন, তার দুই ছেলে মাসুদ ও আলমগীর হোসেন এবং পাচরকি গ্রামের কওছার আলীর ছেলে আলমগীর হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার