সাতক্ষীরার দেবহাটায় রাকেশ বিশ্বাস (৩০) নামের এক মাদক ব্যবসায়ী আত্মহত্যা করেছে। সে দেবহাটা উপজেলার ভাতশালা গ্রামের মুকুল বিশ্বাসের ছেলে।

মঙ্গলবার সকালে ভাতশালা গ্রামের তার ঘরের ভিতর থেকে ঘরের চালের সাথে গলায় প্লাস্টিকের নেট দিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় রাকেশের লাশ উদ্ধার করে দেবহাটা থানা পুলিশ।

স্থানীয়রা জানান, সীমান্ত এলাকায় বাড়ী হওয়ার সুবাদে নিয়মিত ভারত থেকে মাদক চোরাচালান ও মাদকের ব্যবসা চালিয়ে আসতো রাকেশ। ইতোপূর্বে ফেন্সিডিলের চালানসসহ র‌্যাব সদস্যদের হাতে আটকও হয় সে। ছাড়া পেয়ে আবারো মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ে সে।

পারুলিয়ার জনৈক মহাসিন ও আলাউদ্দীন সহ বেশ কিছু কালোবাজারী ব্যাক্তিদের সাথে মাদক চোরাচালান ও হুন্ডির টাকা সংক্রান্ত লেনদেনও রয়েছে তার। বিগত কয়েকমাস ধরে রাকেশের মাদক ব্যবসা নিয়ে বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশ হলে দেবহাটা থানা পুলিশসহ আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নজরদারিতে ছিলো রাকেশ বিশ্বাস। ফলে সাম্প্রতিক সময়ে ভারত থেকে মাদকের চালান না আনতে পারায় মাদক ও হুন্ডি ব্যবসায়ীদের পাওনা টাকা শোধ করতে না পেরে মানসিকভাবে দুঃচিন্তাগ্রস্থ হয়ে পড়ে সে।

এরই মধ্যে অন্যান্য মাদক ব্যবসায়ী ও হুন্ডি ব্যবসায়ীরা তাদের টাকা ফেরত দেয়ার জন্য রাকেশকে চাপপ্রয়োগ করতে থাকে। একপর্যায়ে সোমবার রাতের কোন এক সময়ে রাকেশ বিশ্বাস নিজের ঘরের চালের সাথে প্লাস্টিকের নেট দিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে বলে প্রাথমিকভাবে জানিয়েছেন এলাকাবাসী ও স্থানীয়রা।

বিষয়টি নিশ্চিত করে দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার সাহা বলেন, রাকেশ বিশ্বাসের মরদেহটি উদ্ধার পরবর্তী ময়না তদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।