সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

Img

সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের ইফতার ও দোয়া মাহফিল বুধবার বিকেলে প্রেসক্লাব যশোরে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, সম্পাদক ও সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আহসান কবীর, দৈনিক গ্রামের কাগজের সম্পাদক মবিনুল ইসলাম মবিন, দৈনিক প্রভাতফেরীর সম্পাদক ফকির শওকত দৈনিক স্পন্দনের নির্বাহী সম্পাদক মাহবুব আলম লাভলু, দৈনিক সত্যপাঠের নির্বাহী সম্পাদক সাহাবুদ্দিন আলম, সাবেক সভাপতি, মহিদুল ইসলাম মন্টু, নূর ইসলাম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ জামান, সাইফুল আলম সজল, ইউনিয়নের সভাপতি শহিদ জয়, সম্পাদক আকরামুজ্জামানসহ নির্বাহী কমিটি ও সদস্যবৃন্দসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পূর্ববর্তী সংবাদ

যশোরে সাংবাদিকদের তালাবদ্ধ করে রাখলেন নার্সিং ইনস্টিটিউট কর্মকর্তা

যশোর নার্সিং ইন্সটিটিউটের ইন্সট্রাক্টর সেলিনা ইয়াসমিন পুষ্পের দুর্নীতির তদন্তের সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে লাঞ্ছিত হয়েছেন গণমাধ্যমকর্মীরা।

বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে যশোর নার্সিং ইন্সটিটিউটে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার শিকার সাংবাদিকরা জানান, যশোর নার্সিং ইন্সটিটিউটের ইন্সট্রাক্টর সেলিনা ইয়াসমিন পুষ্পের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগে বুধবার নার্সিং ও মিডওয়াফারিং অধিদপ্তর থেকে দুই সদস্যের একটি তদন্ত টিম তদন্তে আসেন। এরা হচ্ছেন কমিটির সভাপতি নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তর ঢাকা পরিচালক (শিক্ষা) জাহেরা খাতুন ও সদস্য নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তর ঢাকা নার্সিং অফিসার ও ডিপিএম খোরশেদ আলম। এ খবর জানতে পেরে কয়েকটি টেলিভিশন চ্যানেল ও স্থানীয় পত্রিকার সাংবাদিকরা নার্সিং ইন্সটিটিউটে যান।

অবশ্য সাংবাদিকদের পৌঁছানোর আগেই তদন্ত কমিটি যশোর নাসিং ইন্সস্টিটিউট ত্যাগ করেন। সাংবাদিকরা তদন্তের কারণ জানতে ইন্সট্রাক্টরের কক্ষে গেলে তিনি সাংবাদিকদের সাথে র্দুব্যবহার করেন এবং ইন্সটিটিউটের প্রধান ফটকে তালা দিয়ে সাংবাদিকদের আটক রাখেন। তিনি নার্সিংয়ের মেয়েদের ডেকে সাংবাদিকদের হেনস্তা করার হুমকি দেন।

খবর পেয়ে সাংবাদিক নেতারা গিয়ে অবরুদ্ধদের মুক্ত করেন। অবস্থা বেগতিক দেখে ইন্সট্রাক্টর সেলিনা ইয়াসমিন পুষ্প পরে সাংবাদিকদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

এদিকে যশোর জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক আবুল কালাম আজাদ লিটু নার্সিং ইন্সটিটিউটে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

তিনি জানান, নার্সিং ইন্সটিটিউট তার আওতায় না থাকলেও বিষয়টি তিনি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন। একইসাথে তিনি সাংবাদিক লাঞ্ছিতের ঘটনায় বিচার দাবি করেন।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার