শ্রীমঙ্গলে ঘুড়ি ট্যুর এন্ড ট্রাভেলস এর শুভ প্রারম্ভায়ন

image
image

শ্রীমঙ্গল টি হ্যাভেন রিসোর্টের কনফারেন্স রুমে শুক্রবার ১ লা নভেম্বর সন্ধ্যারাতে এর শুভ প্রারম্ভায়ন অনুষ্ঠিত হয়।

এতে ঘুড়ি ট্যুর এন্ড ট্রাভেলস এর আনুষ্ঠানিক প্রারম্ভায়ন ঘোষণা করেন সিলেট বিভাগীয় প্রাক্তন স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হরিপদ রায়। উপস্থিত ছিলেন টি হ্যাভেন রিসোর্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও শ্রীমঙ্গল পর্যটন সেবা সংস্থার আহবায়ক আবু সিদ্দিক মুসা, রোটারিয়ান শাহ আরিফ আলী নাসিম, পর্যটন শিল্পের অন্যতম পথিকৃৎ শামসুল হক, ট্যুরিস্ট পুলিশের সহকারি উপ পরিদর্শক মোঃ নোয়াব আলীসহ শ্রীমঙ্গলের বিভিন্ন হোটেল রিসোর্টের মালিক পক্ষের লোকজন, সুধীজন, ট্যুর গাইড, পর্যটন সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের লোকজনসহ স্থানীয় ইলেকট্রনিকস ও প্রিন্ট মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

"... চলুন উড়ি ঘুড়ির মতো " এই স্লোগানে উজ্জীবিত হয়ে ৪ জন নারী উদ্যোক্তা ও ১জন পুরুষ উদ্যোক্তার সমন্বয়ে এই ট্যুর ও ট্রাভেলসটি আত্মপ্রকাশ করলো। নারী উদ্যোক্তারা হলেন- শারমিন আশা, মুসলিমা ইতি, সামিয়া জাফরিন, ফাহমিদা জান্নাত, আর পুরুষ উদ্যোক্তা এনামুল হক।

ঘুড়ি ট্যুর এন্ড ট্রাভেলস এর অন্যতম নারী উদ্যোক্তা শারমিন আশা জানান, শ্রীমঙ্গলকে বিশ্ব ট্যুরিজম ইন্ডাস্ট্রিতে একটি শক্ত অবস্থানে পৌঁছানোর জন্য সকল ধরনের কার্যক্রম পরিচালনা করবেন তারা। এই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে তারা পর্যটক ও ভ্রমনজনিত সকলের জন্য হোটেল ও রিসোর্ট বুকিং, পাসপোর্ট ও ভিসা প্রসেসিং, আন্তর্জাতিক ও আভ্যন্তরীণ বিমান টিকেট সংগ্রহ, পর্যটকদের মেডিকেল সেবা ও ভ্রমণ সম্পর্কিত সকল কাজ সম্পাদন করবে। এতে তিনি সকলের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেন।

পূর্ববর্তী সংবাদ

চল্লিশেও ‘কুমারী’ পপি!

ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় নায়িকা সাদিকা পারভীন পপি। ক্যারিয়ারেও একাধিক ব্যবসাসফল ছবি রয়েছে তার ঝুলিতে। পাশাপাশি পপি মডেলিং, ওয়েব সিরিজ, নাটক সব ক্ষেত্রেই সেরা। তবে একটা বিষয়ে বরাবরই পিছিয়ে এ নায়িকা। সেটি হলো, তার সমসাময়িক সব নায়িকার বিয়ে হয়ে গেলেও এখনো বিয়েই করেননি পপি।

তার বয়স এখন ৪০। ১৯৭৯ সালের ১০ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশের খুলনা জেলায় জন্মগ্রহণ করেন তিনি। ছয় ভাইবোনের মধ্যে পপি সবার বড়। পরিবারের অনিচ্ছাতে প্রথম মিডিয়াতে আসলেও এখন পপিকে সাপোর্ট দিচ্ছেন সকলেই।

তবে বিয়েই কেন করছেন না পপি? এমন উত্তরে বরাবরই জানা যায়, ভয়! বিয়েতে পপির কীসের ভয়? এমন প্রশ্নে শুরুতে কোন উত্তর না দিতে চাইলেও পরে পপি মুঠোফোনে বলেন, বিয়ে অনেক বড় একটি সিদ্ধান্ত। জীবনসঙ্গী হিসেবে একজন সঠিক মানুষের জন্য এখনো অপেক্ষা করছি। তবে একজন সৎ মানুষ পাওয়া বড়ই মুশকিল। আর চারদিকে প্রতিনিয়ত এত এত বিবাহবিচ্ছেদের খবর পাচ্ছি। যার ফলে বিয়েতে ভীষণ ভয় পাই।

প্রসঙ্গত, পপি প্রথম ১৯৯৫ সালে একটি ফটোসুন্দরী প্রতিযোগিতার মাধ্যমে মিডিয়ায় অভিষেক হয়। পরবর্তীতে মনতাজুর রহমান আকবর পরিচালিত ‘কুলি’ ছবিতে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্রে আসেন তিনি। যদিও শাকিল খানের বিপরীতে সোহানুর রহমান সোহানের পরিচালনায় ‘আমার ঘর আমার বেহেশত’ ছবিতে প্রথম ক্যামেরার সামনে দাঁড়ান। আর এই ছবির মাধ্যমেই কোটি দর্শকের প্রাণের নায়িকা হয়ে উঠেন পপি।

পপির ক্যারিয়ারের সেরা চলচ্চিত্রগুলোর মধ্যে রয়েছে, ‘কুলি, ‘আমার ঘর আমার বেহেশত’, ‘দরদী সন্তান’, ‘লাল বাদশা’, ‘বিদ্রোহী পদ্মা’, ‘রানীকুঠির বাকী ইতিহাস’, ‘মেঘের কোলে রোদ’, ‘গঙ্গাযাত্রা’, ‘কি যাদু করিলা’, ‘পৌষ মাসের পিরীত’।

আর পপি শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে জাতীয় পুরস্কার পান ‘কারাগার’ (২০০৩), ‘মেঘের কোলে রোদ’ (২০০৮) ও ‘গঙ্গাযাত্রা’ (২০০৯) ছবির জন্য

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার