শেরপুরে বাসায় ঢুকে তরুণীকে ধর্ষণ, থানায় মামলা

Img

বগুড়ার শেরপুরের পৌর এলাকায় এক কিশোরী মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে একই এলাকার বরাত আলী (১৮) নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) দুপুরের পর ভুক্তভোগী ওই কিশোরীর বাবা বাদি হয়ে শেরপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেছেন। মামলায় শেরপুর শহরের উত্তরসাহাপাড়া এলাকার বাসিন্দা আব্দুল খালেকের ছেলে বরাত আলীকে (১৮) অভিযুক্ত করা হয়েছে। তবে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এই সংবাদ লেখা পর্যন্ত তাকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

মামলা সূত্রে জানা যায়, শেরপুর পৌরশহরের উত্তরসাহাপাড়ায় এলাকায় গত ২ জানুয়ারি সকাল দশটার দিকে কিশোরী মেয়েকে বাসায় রেখে স্বামী-স্ত্রী দু’জনই কাজে যান। আর এই সুযোগে বরাত আলী তাদের বাসায় ঢুকে ওই মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এরপর তারা বাসায় এলে ভিকটিম ঘটনাটি জানায় বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে।

মামলার বাদি অভিযোগ করে প্রবাসীর দিগন্তকে বলেন, ‘ঘটনার পর আইনের আশ্রয় নিতে থানায় যেতে চাইলে বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখানো হয়। সেইসঙ্গে বিচারের নামে তালবাহানা শুরু করেন একপর্যায়ে মেয়ের ধর্ষণের উপযুক্ত বিচার পেতে পুলিশের কাছে আশ্রয় নিয়েছেন বলে জানান তিনি।’

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শেরপুর টাউন পুলিশ ফাঁড়ির (উপ-পরিদর্শক) সাম্মাক হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে প্রবাসীর দিগন্তকে বলেন, ‘ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য বগুড়ায় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া উক্ত ঘটনায় থানায় মামলা নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি অভিযুক্ত ধর্ষককে ধরতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও দাবি করেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।’

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার