শিমুলিয়া ঘাটে ঢাকামুখী মানুষের স্রোত

Img

মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে ঢাকাগামী যাত্রীদের ঢল থামছেই না। প্রাণঘাতী ভাইরাস করোনার ঝুঁকি নিয়েই আজ শনিবারও শিমুলিয়া ঘাটে ঢাকাগামী যাত্রীদের ঢল দেখা গেছে। পদ্মা নদীর শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌ-রুট পারপারে যেন প্রতিযোগিতায় লেগেছে হাজার হাজার মানুষের।

শনিবার সকাল থেকে দক্ষিণবঙ্গের শিমুলিয়া ঘাটে যাত্রীদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ করা গেছে। ফেরি ও ট্রলারে গাদাগাদি করে শত শত যাত্রী পদ্মা পাড়ি দিয়ে শিমুলিয়া ঘাটে ছুটে আসছেন। এতে যাত্রীস্রোতে পরিণত হয়েছে দক্ষিণবঙ্গের নৌরুটের শিমুলিয়া ঘাট।

পোশাক কারখানা খোলার পর রবিবার থেকে ঈদের কেনাকাটায় শপিং মল খুলছে- এ কারণেই দক্ষিণবঙ্গের ২১টি জেলার প্রবেশদ্বার হিসেবে পরিচিত শিমুলিয়া ঘাটে ঢাগাগামী যাত্রীদের হুমড়ি খেয়ে পড়ার এমন দৃশ্য দেখা গেছে।

এছাড়া গত কয়েক দিন হাজার হাজার শ্রমজীবী মানুষ পরিবার-পরিজন নিয়ে কর্মস্থলের উদ্দেশ্যে ছুটলেও এখন অন্যান্য পেশাজীবী মানুষও ঢাকায় রওনা হওয়ায় ভিড় বেশি হয়েছে। তিল ধারণের ঠাঁই নেই ফেরি ঘাট আর রিকশা অটোস্ট্যান্ডসহ পুরো শিমুলিয়া ঘাট এলাকায়।

শিমুলিয়া ঘাটে দেখা যায়, নৌরুট পাড়ি দিয়ে শিমুলিয়া ঘাট থেকে ছোট ছোট যানবাহনে শ্রমজীবী মানুষ পরিবার-পরিজন নিয়ে ছুটে যাচ্ছে নিজ নিজ গন্তব্যে। অনেকে বাধ্য হয়ে পায়ে হেঁটেই দীর্ঘ পথ পাড়ি দিচ্ছে। কাঠাঁলবাড়ি ঘাট থেকে ফেরি ও ট্রলারে পদ্মা পাড়ি দিয়ে মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের শিমুলিয়া ঘাটে নামছেন তারা। ফলে শিমুলিয়া ঘাট এলাকায় এসেও বিভিন্ন যানবাহনের স্ট্যান্ডগুলোতে হুমড়ি খেয়ে পড়ছে যাত্রীরা। ফেরিতে যেমন চাপাচাপি করে পদ্মা পাড়ি দিয়েছে তেমনি সামাজিক দূরত্ব তোয়াক্কা না করেই যানবাহনে উঠার প্রতিযোগিতা বিস্মিত হওয়ার মতো।

যেসব যাত্রী নদী পার হচ্ছেন তাদের বেশিরভাগই ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও গাজীপুরের বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চাকরিজীবী। পদ্মা পাড়ি দেওয়ার পর শিমুলিয়া ঘাট থেকে অটোরিকশা, মিশুক আর রিকশায় করে সড়কে ভেঙে ভেঙে ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও গাজীপুরের কর্মস্থলে ছুটছেন দক্ষিণবঙ্গের যাত্রী সাধারণ। ওই সব যানবাহনে চড়তে গিয়ে যাত্রীদের গুণতে হচ্ছে বাড়তি ভাড়া।

মাওয়া নৌ-ফাঁড়ির ইনচার্জ সিরাজুল কবীর জানান, সকালের দিকে রো-রো ফেরি বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীর, ফেরি ক্যামেলিয়া, কিশোরী ও ফেরি রায়পুরায় কাঁঠালবাড়ি ঘাট থেকে যাত্রী ভরে ছেড়ে আসে শিমুলিয়া ঘাটে। ফেরিগুলোতে জরুরি সেবার যানবাহন ছাড়াও অসংখ্য যাত্রী ছিল। যাত্রীদের অধিকাংশ পরিবার নিয়ে তথা স্ত্রী-সন্তান নিয়ে ঢাকায় ছুটছেন। ফেরি ছাড়াও ট্রলারে করে যাত্রী পারাপার হচ্ছে। ট্রলারগুলো ঘাটের বাইরে নোঙর করা হচ্ছে।

বিআইডব্লিউটিসির শিমুলিয়াঘাটের উপ-মহাব্যবস্থাপক মো. শফিকুল ইসলাম জানান, দিনের বেলায় সীমিত আকারে নৌরুটে ফেরি চলাচল করছে। তবে রাতে পণ্যবাহী ট্রাক পারাপারে ফেরির সংখ্যা বাড়ানো হয়ে থাকে। দিনের বেলায় জরুরি সেবার যানবাহন ছাড়াও ফেরিতে ঢাকাগামী যাত্রীদের ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ঈদ ঘনিয়ে আসায় নৌরুটে যাত্রী চাপও বাড়ছে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার