লেবাননে নতুন মন্ত্রী পরিষদকেও প্রত্যাখান করে আন্দোলন অব্যাহত 

Img

লেবাননে চলমান আন্দোলনের মুখে নতুন সরকার গঠন করলেও সরকারকে প্রত্যাখ্যান করে আন্দোলন অব্যাহত রেখেছে আন্দোলনকারীরা।

গত কয়েকদিন ধরে টানটান উত্তেজনা বিড়াজ করছে ডাউন টাউনের সংসদীয় এলাকায়। আইন শৃংখলা বাহীনির সাথে প্রতিনিয়ত সংঘর্ষে জড়াচ্ছেন আন্দোলনকারীরা। আইন শৃংখলা বাহীনিকে লক্ষকরে নিক্ষেপ করছে পাথরের গুড়ি। আন্দোলনকারীদের প্রতিহত করতে আইন শৃংখলা বাহীনিও জলকামান ও ক্বাদানি গ্যাস ব্যবহার করছে।

আন্দোলনকারীরা বলছেন, গোত্রভিত্তিক রাজনীতি থেকে বেরিয়ে এসে তারা নতুন নির্বাচন চান। বর্তমান কোন রাজনৈতিক দলের ওপরও তারা আস্থা রাখছেন না বলে জানিয়েছেন।

লেবাননের সংবিধান অনুযায়ী দেশটির প্রেসিডেন্ট হবেন খৃষ্টানদের মধ্য থেকে, মুসলিম সুন্নিদের মধ্যে থেকে হবেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া শিয়াদের মধ্য থেকে স্পীকার। এভাবে সকল ধর্ম থেকে সব গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী দেয়ার রীতি রযেছে।

কিন্তু এই সংবিধান থেকে বের হতে চান লেবাননের জনগন। তবে এই দাবি মানতে নারাজ রাজনীতিবীদগন।

নব গঠিত নতুন সরকার সম্পর্কে জানতে চাইলে আন্দোলনকারীরা বলেন, মন্ত্রী সভার চেয়ারের লোক গুলো পরিবর্তন হলেও, যারা এসেছে তাদের সবাই ওই একি দলের লোক, যারা লেবাননের অর্থনৈতিক অচল অবস্থার জন্য দায়ি। তাদের নির্দেশেই এই সকল নতুন মন্ত্রী গঠন হয়েছে। কাজেই তাদের কাছ থেকে ভাল কিছু আশা করা অর্থহীন।

এই সরকারকে একটু সুযোগ দিয়ে দেখা যায় কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তারা বলেন। এদের আর কোন সুযোগ দেয়া হবে না। যতক্ষণ পর্যন্ত সংসদ ভেঙ্গে দিয়ে সবাই সরে না যাবে, ততক্ষন পর্যন্ত আন্দোলন চলবে বলেও জানান আন্দোলনকারীরা।

উল্লেখ্য, লেবানন সরকার বিরুধী আন্দোলনের জেরে গত ২৯ অক্টোবর আন্দোলনের ১৩দিন এর মাথায় প্রধানমন্ত্রী থেকে পদত্যাগ করে সায়াদ আল হারিরি। এর দেড় মাস পর নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে হাসান দিয়াবকে নিয়োগ দেন লেবাননের সংসদীয় কমিটি।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার