রোজা রাখা অবস্থায় কী রক্ত দেওয়া যাবে?

বিষয়: পবিত্র মাহে রমজান ২০২১
Img
ছবি: প্রবাসীর দিগন্ত।

বছর ঘুরে বরকত, রহমত আর নাজাত এর বার্তা নিয়ে আসে পবিত্র মাহে রমজান বা সিয়াম সাধনার মাস। চলছে রমজান মাস। ইসলাম ধর্মের সবচেয়ে পবিত্র মাস এটি। এই মাসে ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা রোজা রাখে। সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত তারা উপবাস পালন করে। সেহেরি ও ইফতার, এই দুটি রীতি মেনে রমজান মাস পালন করা হয়। অনেকগুলো কারণে রোজা ভেঙে জেতে পারে। কারণগুলো জানা না থাকলে প্রত্যেক মুসলিমের জানা জরুরি। অনেকের মনে প্রশ্ন আসতে পারে রোজা রেখে কি রক্ত দেওয়া যাবে? রোজা রেখে রক্ত দিলে কি রোজা ভেঙে যাবে?

রক্তদান একজন রোগীর সেবার অন্তর্ভুক্ত। কারণ পবিত্র কুরআনে বলা হয়েছে যে ব্যক্তি কোনো মানুষের জীবন রক্ষা করল, সে যেন পুরো মানবজাতিকে রক্ষা করল। রক্ত দান নিঃসন্দেহে ভালো কাজ। কারণ আপনার দেওয়া রক্তে বেঁচে যেতে পারে কারও প্রাণ। রোজা রেখে রক্তদান করার ক্ষেত্রে কঠোরভাবে নিষেধ নেই। নিতান্ত প্রয়োজনে দেওয়ার ব্যাপারে অনুমতি রয়েছে।

রোজা ভাঙার কারণ:
রোজা ভঙ্গের কারণ হচ্ছে স্বাভাবিক প্রবেশ পথ দিয়ে শরীরে কিছু প্রবেশ করানো। শরীর থেকে কিছু বের হলে রোজা ভঙ্গ হয় না। তাই রক্ত দিলে রোজা ভঙ্গ হবে না।

নবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম রোজা রেখে সিঙ্গা লাগিছেন। সিঙ্গার মাধ্যমে শরীরের বিষাক্ত রক্ত বের করা হয়। তাই রোজা রেখে নিজের টেস্ট/পরীক্ষার জন্য কিংবা কোনও রোগীকে দেওয়ার জন্য রক্ত দিলে, রোজার ক্ষতি হবে না। তবে রক্ত দিয়ে দুর্বল হলে গেলে বা রোজা ভেঙে ফেলার আশঙ্কা থাকলে সেই অবস্থায় রক্ত দেওয়া মাকরূহ হবে।(বোখারি শরিফ, হাদিস নং-১৯৩৮, মুসলিম শরিফ, হাদিস নং-১১০৬,আবু দাউদ শরিফ, হাদিস নং-২৩৭২)

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার