রাজশাহীতে অভিযানে অবৈধ ইটভাটা বন্ধ, জরিমানা আদায়

Img

রাজশাহী মেট্রোপলিটন এরিয়ায় স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট (পরিবেশ) এর অভিযানে ১টি ইটভাটা বন্ধ, মামলা দায়েরসহ ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দিন ব্যাপি এ অভিযানে রাজশাহী মেট্রোপলিটন এলাকার পবা ও চন্দ্রিমা থানাধিন ৬টি ইটভাটায় অভিযান চালানো হয়। 

এ অভিযান পরিচালনা করেন, স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট (পরিবেশ) ও মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুবুর রহমান। 
নিষিদ্ধ এলাকায় ও পরিবেশ ছাড়পত্র ও লাইসেন্স বিহীন ইটভাটা নির্মাণ করায় চন্দ্রিমা থানাধিন মেসার্স এমআরকে, মেসার্স এমআরকে-১, মেসার্স এমএসএ, মেসার্স বাংলা, মেসার্স এএন্ডএইচ ইট ভাটার মালিককে আটক করা হয়। 

দোষ স্বীকার করায় আটককৃত ব্যক্তিদেরকে স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট এর মাধ্যমে ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ আইন)-২০১৩ সংশোধন-২০১৯ এর ৪ ও ৮ ধারায় দোষি সাব্যস্ত্য করে প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড ও অনাদায়ে ৩ মাস সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়। অর্থ দণ্ডের টাকা পরিশোধ করায় তাদেরকে ছেড়ে দেয়া হয়। আদায়কৃত অর্থদণ্ডের টাকা অনতিবিলম্বে রাষ্ট্রিয় কোষাগারে চালানমূলে জমা করার নির্দেশ প্রদান করেন।

এ ছাড়াও রাজশাহী মেট্রোপলিটন এরিয়ার পবা থানাধিন মেসার্স এমএম ব্রিক্স এর স্বত্বাধিকারী মো.  মনিরুজ্জামান এর বিরুদ্ধে ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ আইন)-২০১৩ সংশোধন-২০১৯ এর ৪, ৬ ও ৮ ধারা লংঘনের অপরাধ আমলে নিয়ে সমন ইস্যু করেন। পাশাপাশি উক্ত ইট ভাটার কার্যক্রম আদালতের পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ প্রদান করেন এ আদালত।

অভিযান পরিচালনার সময় পরিবেশ অধিদপ্তর রাজশাহী জেলা কার্যালয়ের পরিদর্শক আজহারুল ইসলাম প্রসিকিউটারের দায়িত্ব পালন করেন। 

এ ছাড়াও র‌্যাব-৫ এর ডিএডি শহিদুল ইসলাম, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স রাজশাহীর ফায়ার হাউস ইন্সপেক্টর ফারুক আহমেদ ও পবা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রেজাউল হাসান, চন্দ্রিমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সিরাজুম মনিরসহ সঙ্গীয় ফোর্স উক্ত স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট পরিচালনায় সহায়তা করেন।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার