জেনি লি ১৯ বছর বয়সে মডেলিং শুরু করলেও ৩৬ বছর বয়সে এসে পর্নো ছবিতে অভিনয় শুরু করেন । ২০১৫ সালে নিজের পেশা ছেড়ে দেন এই তারকা। পর্নো বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে বর্তমানে তার সাবস্ক্রাইবার রয়েছে প্রায় ৪৫ হাজার।

নিজের পেশা থেকে জেনি লি যখন সরে দাঁড়ান তখন তাকে নিয়ে একটি জরিপ চালায় একটি সংস্থা। যেখানে তুলে ধরা হয় পর্নো তারকাদের মধ্যে বিশ্বে ১১৯তম ছিলেন তিনি। সত্যি বলতে তিনি তার জীবনে খুশি মনে হলেও বর্তমানে গৃহহীন অবস্থায় দিন কাটাচ্ছেন অভিনেত্রী।

তিনি এখন বাস করেন যুক্তরাষ্ট্রের লাস ভেগাসে আন্ডারগ্রাউন্ডে। যেখানে বাসাবাড়ি, হোটেল বা ক্যাসিনোর ব্যবহৃত পানি ও খাবার খেয়েই দিন কাটান জেনি লি।

বৃষ্টি এলে জেনি লি’র থাকার স্থানে পানি জমায়। তারপরও সেখানেই মাথা গুঁজে পড়ে আছেন এক সময়ের জনপ্রিয় এই পর্ন তারকা। এখানে জেনির সাথে বাস করেন আরও প্রায় ১০০০ গৃহহীন মানুষ।

তবে জেনি লিও মাদকাসক্ত কিনা তা জানা যায়নি। এরই মধ্যে সেখানে বেশকিছু মানুষের সঙ্গে বন্ধুত্ব গড়ে তুলেছেন তিনি।নেদারল্যান্ডসের একটি সংবাদভিত্তিক প্রামাণ্যচিত্রের কাজে গত জুলাইয়ে ওই টানেলে যান একজন সাংবাদিক। তারা টানেল নেটওয়ার্ক নিয়ে একটি প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ করছিলেন।

এ সময় ওই সাংবাদিকের চোখে পড়েন জেনি লি। এরপর তার সাক্ষাৎকার নেন। এ সময় নিজের পরিচয় দেন জেনি লি।

ওই সাংবাদিক বলেন, পর্নো ছবির জগতে যে দাপুটে জেনি লিকে দেখা গেছে, এখন তাকে দেখে চেনা মুশকিল। তার শরীর ভেঙে গেছে। আগের মতো কোনো চাকচিক্য নেই। তবে তিনি নিজেই এক সময়ের জনপ্রিয় পর্নো তারকা জেনি লি বলে পরিচয় দিয়েছেন। বলেছেন, পর্নো জগতে আমি বেশ খ্যাতি পেয়েছিলাম।