যে ভুলে আটকে গেল ৩২ জনের সৌদিযাত্রা

Img

কেরানীগঞ্জ থেকে আসা প্রবাসী নূর ইসলামের চাচা আলমগীর বলেন, ‘আমার ভাতিজা নূর ইসলামের করোনা টেস্ট ধানমন্ডি ইবনে সিনা হাসপাতালে করা হয়েছে। সেই নেগেটিভ সনদ নিয়ে বিমানবন্দরে আসছি। কিন্তু আমার ভাতিজাকে বোর্ডিং কার্ড দেয়নি।’

মূলত বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে করোনা পরীক্ষার সনদ নিয়ে আসায় ৩২ জনকে বোর্ডিং কার্ড দেয়নি সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্স। 

শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে তাদের রেখেই ছেড়ে যায় এসভি ৩৮০৭ ফ্লাইট। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের একাধিক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

টিকিট পাওয়ার পর অনুমোদিত প্রতিষ্ঠান থেকে করোনা পরীক্ষার পর্যাপ্ত সময় ছিল না বলে জানান তাদের স্বজনেরা। এদিকে আগামী ২৮শে সেপ্টেম্বর এই ৩২ জনকে বৈধ সনদ নিয়ে যাত্রার অনুমতি দিয়েছে সৌদিয়া এয়ারলাইন্স।

আগেই জানিয়ে দেয়া হয়েছিল সরকার নির্ধারিত হাসপাতল ছাড়া কোভিড ১৯ পরীক্ষার নেগেটিভ ফলাফল গ্রহণযোগ্য হবে না।  যাদের বিমানে চড়ার অনুমতি দেয়া হয়নি তারা সবাই কোভিড নেগেটিভ সনদ নিয়েছেন বেসরকারি হাসপাতল থেকে।  

দুপুরের দিকে যারা সরকার নির্ধারিত হাসপাতাল বা পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে কোভিড-১৯ মুক্ত থাকার সনদ নিয়ে বিমান বন্দরে এসেছেন তারা পুরো প্রক্রিয়া নিয়ে সন্তুষ্ট। 

শনিবার সৌদিগামী প্রবাসীদের নিয়ে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিশেষ ফ্লাইটটি ৪৫ মিনিট দেরিতে পৌনে ৬টায় ছেড়ে যায়। এই ফ্লাইটের সবাই স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান থেকে কোভিড-১৯ সনদ নিয়ে বিমানে চড়েছেন। 

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার