যেসব রোগের অব্যর্থ দাওয়াই ডার্ক চকলেট

Img

ছোট থেকে বৃদ্ধ চকলেট পছন্দ করেন না এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া যাবে না। প্রিয়মানুষকে খুব সহজেই খুশি করে দেয়া যায় চকলেট দিয়ে। তবে চিনি থাকায় অনেকেই খেতে চান না চকলেট। দাঁত আর স্বাস্থ্যের কথা ভেবে লোভ সামলে নেন। 

তবে জানেন কি? ডার্ক চকলেটে ক্ষতির চেয়ে উপকারের পাল্লাই বেশি ভারী। এক্ষেত্রে এক গাদা চিনি মেশানো চকলেট নয়, ঘন কালচে রঙা ডার্ক চকলেট শরীরের জন্যে যথেষ্ট উপকারী। গবেষণায় প্রমাণিত, নানা খনিজ ও অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টে সমৃদ্ধ ডার্ক চকোলেট রক্তচাপ কমিয়ে হার্ট ভালো রাখে। পাশাপাশি অবসাদ কমিয়ে মন ভালো রাখতে সাহায্য করে।

২০১৫ সালের এক সমীক্ষা বলছে, দৈনিক ২৫ গ্রাম চিনি ছাড়া ডার্ক চকলেট খেলে ৮ সপ্তাহ পর রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে আসে। ডার্ক চকলেটে থাকা পলিফেনল ও থিওব্রোমিন নামক যৌগ রক্তের লো-ডেনসিটি লাইপোপ্রোটিন অর্থাৎ এলডিএল নিয়ন্ত্রণে রাখার পাশাপাশি এইচডিএল অর্থাৎ ভালো কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়িয়ে হার্ট ভালো রাখতে সাহায্য করে।  

জেনে নিন কোন কোন রোগের সেরা দাওয়াই এই ডার্ক চকলেট- 

  • অবসাদ প্রতিরোধে চকোলেটের কোনো জুড়ি নেই। ভিটামিন বি-১২, রাইভোফ্ল্যাভিন, ম্যাঙ্গানিজ, ফসফরাস, জিঙ্ক, ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম, আয়রন ইত্যাদি পুষ্টিগুণে ভরপুর ডার্ক চকলেট।
  • এটি মন ভালো রাখার সঙ্গে সঙ্গে হার্ট ভালো রাখে। 
  • ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে ডার্ক চকলেট। 
  • ওজন কমাতে অব্যর্থ এক উপায় এটি।  
  • ডায়াবেটিস, হার্টের অসুখ, পার্কিনসনস ডিজিজ, অ্যালজাইমারস ডিজিজ, চোখের সমস্যা কমায় ডার্ক চকলেট।   
  • এছাড়াও আর্থ্রাইটিস, টাইপ টু ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমিয়ে দেয়।  

মনে রাখবেন সপ্তাহে তিনদিনে এক থেকে দুই টুকরার বেশি ডার্ক চকলেট না খাওয়াই ভালো। মাত্রাতিরিক্ত খেলে ওজন বেড়ে যেতে পারে। যাদের অ্যালার্জি আছে, তারা কিন্তু চকলেটে থেকে শতহস্ত দূরে থাকবেন। 

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার