যশোরে বোমা ফাটিয়ে ও ব্যবসায়ীকে ছুরিকাহত করে ১৭ লাখ টাকা ছিনতাই

Img

যশোরে টহল পুলিশের সামনে প্রকাশ্য দিবালোকে একটি ব্যাংকের সামনে ছুরিকাহত করে ও বোমা ফাটিয়ে সতের লাখ টাকা ছিনতাই হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর দুই টার দিকে শহরের ইউসিবিএল ব্যাংকের সামনে এ ঘটনা ঘটে। আর এই ঘটনাস্থল থেকে কোতয়ালী থানার দুরত্ব মাত্র দেড়শ গজ।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম জানান, শহরের আগমনী মোটরসের স্বত্ত্বাধিকারীর ইকবাল হোসেনের ছোট ভাই এনামুল হক (২৫) দুপুরে টাকা জমা দেয়ার জন্য মোটরসাইকেলে ইউসিবিএল ব্যাংকে আসেন। ইমন নামে অপর একজন তার সাথে ছিল। তারা ব্যাংকের সামনে আসার সাথে সাথে টাকার ব্যাগ বহণকারী এনামুলের উপর হামলা চালায় ছিনতাইকারীরা। তারা ব্যাগ ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করলে তিনি বাধা দেন। এসময় তার দুই হাতে, বুক ও পেটে উপর্যুপরী ছুরিকাঘাত করে টাকার ব্যাগ ছিনিয়ে নেয়া হয়। যাওয়ার সময় একটি বোমার বিষ্ফোরণ ঘটায় ছিনতাইকারীরা। বোমার স্প্লিন্টারে ব্যাংকের এটিএম বুথ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

স্থানীয়রা মারাত্মক জখম এনামুলকে দ্রুত যশোর জেনারেল হাসপাতালে নেন। চিকিৎসাধীন এনামুল জানান, তিনি প্রায় সতের লাখ টাকা ব্যাংকে জমা দিতে যাচ্ছিলেন। ব্যাংকের সামনে যাওয়ার সাথে সাথে তিন ছিনতাইকারী তার উপর হামলা চালায়। তিনি শহরের বকচরের হাবিবুর রহমানের ছেলে।

এদিকে ইউসিবি ব্যাংকের সিকিউরিটি গার্ড মোস্তফা কামালসহ আস পাশের দোকান মালিকারা জানান, ঘটনার সময় মাত্র ২০ গজ দুরে জেস টাওয়ারের সামনে কোতয়ালী থানার একটি টহল পুলিশের গাড়ি দাঁড়িয়ে ছিল। এসময় পুলিশের কোন সদস্য গাড়ি থেকে নেমে প্রতিরোধের জন্য এগিয়ে যায়নি।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তারেক শামস জানান, হাত, বুক ও পেটে ছুরিকাহত এনামুলের অবস্থা গুরুতর। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে খুলনায় স্থানান্তর করা হয়েছে।

যশোর কোতয়ালি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তাসমীম আহমেদ, পুলিশ ও র‌্যাব কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ঘটনাস্থলের চারিদিকে একাধিক সিসি ক্যামেরা রয়েছে। ওই ক্যামেরাগুলো থেকে ভিডিও চিত্র সংগ্রহ করা হচ্ছে। পুলিশের একাধিক দল ছিনতাইকারী আটকে অভিযান শুরু করেছে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার