ময়মনসিংহে স্বামীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে স্ত্রী আত্মহত্যা

Img

ময়মনসিংহের ভালুকায়  স্বামীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে  এক সন্তানের জননী গৃহবধূ শাহীনা আক্তারের (২৫) আত্মহত্যা ।

ভালুকা মডেল থানা পুলিশ শাহীনা লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য আজ মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।

স্ত্রীকে আত্মহত্যা প্ররোচনার অভিযোগে শাহীনার স্বামী শাহ আলমকে আসামি করে ভালুকা মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শাহীনার মা হালিমা খাতুন বাদী হয়ে সোমবার (১০ আগস্ট) রাতে মামলাটি করেন। শাহ আলম তারাকান্দা উপজেলার জলাল উদ্দিনের ছেলে। সোমবার (১০ আগষ্ট) সন্ধ্যায় ভালুকা পৌর সভার ৭ নম্বর ওয়ার্ড এলাকায় ভাড়া বাসায় স্বামীর নির্যাতনে গৃহবধূর আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে।

থানা ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, তারাকান্দা উপজেলার জালাল উদ্দিনের ছেলে শাহ আলম প্রায় ৭ বছর আগে ধোবাউড়ার সিন্দুরা গ্রামের আবদুল হেকিমের মেয়ে শাহীনা আক্তারকে বিয়ে করেন। দুই বছরের একটি মেয়ে রয়েছে ওই দম্পতির ঘরে। ওয়ার্কশপ ব্যবসার জন্য স্ত্রীকে নিয়ে ভালুকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করেন শাহ আলম। বিয়ের পর থেকেই স্বামী শাহ আলম বিভিন্ন বিষয় নিয়ে শাহীনার ওপর নির্যাতন শুরু করেন।

এদিকে, মেয়ের ওপর নির্যাতনের খবর পেয়ে হালিমা খাতুন ঘটনার দিন সোমবার (১০ আগস্ট) দুপুরে মেয়ের বাসায় যান। ওই দিন শাশুড়ির উপস্থিতিতেই স্ত্রীর ওপর নির্যাতন চালায় শাহ আলম। ওই সময় বাধা দেওয়ার তিনি শাশুড়িকেও কিল-ঘুষি দেন। একপর্যায়ে বাসার গোসলখানায় গিয়ে ঝরনার পাইপের সাথে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শাহীনা আত্মহত্যা করেন। খবর পেয়ে ভালুকা মডেল থানা পুলিশ ওই বাসা থেকে শাহীনার লাশ উদ্ধার এবং শাহ আলমকে গ্রেপ্তার করে।

শাহীনার বড়ভাই রফিকুল ইসলাম জানান, তার ভগ্নিপতি শাহ আলম মাদকসেবী। কিন্ত, শাহীনা তার স্বামীর মাদক সেবনের বিষয়টি কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছিল না। ফলে, শাহীনার ওপর স্বামীর নির্যাতনের মাত্রা বেড়ে যায়। নির্যাতনের পাশাপাশি শাহীনাকে একাধিক ট্যাবলেট খাইয়ে ঘুম পারিয়ে রেখে অন্যান্যদের নিয়ে বাসায় বসে মাদক সেবন করে শাহ আলম। বোনের ওপর নির্যাতনের খবর পেয়ে ঘটনার দিন তিনি মাকে বোনের বাসায় পাঠান। ট্যাবলেট খাওয়ানোর কারণে সেদিন ঘুম থেকে উঠে ভাত রান্না করতে বিলম্ব হওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে শাহ আলম আবারো তার বোনকে মারধর করেন। ওই সময় তিনি শাহ আলমকে ফোন করে শাহীনাকে মারধর না করে তার মায়ের সাথে দিয়ে দিতে বলে ছিলেন। তার দাবি, স্বামীর নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচার জন্যই শাহীনা আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে। 

ভালুকা মডেল থানায় ওসি মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন জানান, বাদীর দেওয়া অভিযোগে ওই ঘটনায় আত্মহত্যার প্ররোচনায় মামলা হয়েছে এবং আসামি গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার