ময়মনসিংহে বজ্রপাতে ২ জনের মৃত্যু

Img

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার বজ্রপাতে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। 

বুধবার সকালে ধারা ইউনিয়নের পশ্চিম কুতিকুড়া গ্রামের আঃ হান্নান নামে এক ব্যক্তি বাড়ির আঙ্গিনায় কাজ করার সময় এবং ভুবনকুড়া ইউনিয়নের কড়ইতলা গ্রামে আবুল কাশেম করলা ক্ষেতের কাজ শেষে একটি ষাড় গরু নিয়ে বাড়ি ফেরার সময় বজ্রপাতে নিহত হয়। সেই সাথে ষাড় গরুটিও মারা যায়। 

নিহত দুইজনের পরিবারেকে আর্থিক সহায়তা করা হবে বলে জানান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রেজাউল করিম।

পূর্ববর্তী সংবাদ

করোনার মহামারি জন্য আমরা নিজেরাই দায়ী!

করোনাভাইরাস বলতে ভাইরাসের একটি শ্রেণিকে বোঝায় যেগুলি স্তন্যপায়ী প্রাণী এবং পাখিদেরকে আক্রান্ত করে।
মানুষের মধ্যে করোনাভাইরাস শ্বাসনালীর সংক্রমণ ঘটায়। এই সংক্রমণের লক্ষণ মৃদু হতে পারে, অনেকসময় যা
সাধারণ সর্দিকাশির ন্যায় মনে হয় (এছাড়া অন্য কিছুও হতে পারে, যেমন রাইনোভাইরাস), কিছু ক্ষেত্রে তা
অন্যান্য মারাত্মক ভাইরাসের জন্য হয়ে থাকে, যেমন সার্স, মার্স এবং কোভিড-১৯। 

অন্যান্য প্রজাতিতে এই লক্ষণের তারতম্য দেখা যায়। যেমন মুরগির মধ্যে এটা উর্ধ্ব শ্বাসনালী সংক্রমণ ঘটায়,
আবার গরু ও শূকরে এটি ডায়রিয়া সৃষ্টি করে। মানবদেহে সৃষ্ট করোনাভাইরাস সংক্রমণ এড়ানোর মত কোনো
টিকা বা অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ আজও আবিষ্কৃত হয়নি।

২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বরে চীনের উহান শহরে করোনাভাইরাসের একটি প্রজাতির সংক্রামণ দেখা দেয়। বিশ্ব
স্বাস্থ্য সংস্থা ভাইরাসটিকে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে ‘২০১৯-এনসিওভি’ নামকরণ করে। ২০২০ সালের ২৭ মার্চ পর্যন্ত
প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী বিশ্বের ২০৪টিরও বেশি দেশ ও অধীনস্থ অঞ্চলে ৫,৩২,১০০ (পাঁচ লক্ষ বত্রিশ হাজার
একশত)-এরও বেশি ব্যক্তি করোনাভাইরাস রোগ ২০১৯-এ আক্রান্ত হয়েছেন বলে সংবাদ প্রতিবেদনে প্রকাশ
পেয়েছে। তথ্যসূত্র উইকিপিডিয়া।

৮ মার্চ প্রথম বাংলাদেশেও কারোনার আক্রমণ ঘটে। এর পরে থেকেই বেড়েই চলছে আক্রান্ত আর মৃতের
সংখ্যা। শত চেষ্টা করেও যেনো কোনোভাবে এ অবুঝ জনতাকে বোঝাতে পারছে না আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর
সদস্যরা। নানাভাবে তাদের ঘরে রাখতে চেষ্টা করে যাচ্ছে। ব্যক্তি স্বার্থে নয়, দেশ ও দশের কল্যাণেই কাজ
করছন তারা। তবুও কোনো কারণ ছাড়াই রাস্তায় ঘোরাঘুরি করা যেন আমাদের নেশা হয়ে গেছে।

সরকার চেষ্টা করছে সকলের ঘরে ত্রাণ পোঁছে দেওয়ার। বিশেষ প্রনোদনাও ঘোষণা করা হয়েছে সরকারের পক্ষ
থেকে। সরকারের যখন সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে ঠিক তখনই উচ্ছুক
জনতা ঈদের খুশিতে সামাজিক দূরত্বর কথা ভুলে গিয়ে জনসমগম করে বাড়িতে ফিরে। তারা হয়তো ভুলেই
গেছে বিশ্বজুড়ে মহামারি আকার ধারণ করেছে প্রাণঘাতী অদৃশ্য এ ভাইরাস। যা ইতিমধ্যে ১ লক্ষ ৫৭ হাজার
মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে।

শনিবার (১৮ এপ্রিল) সকালে আর্ন্তজাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ইসলামী চিন্তাবিদ ও বাংলাদেশ খেলাফত মজলিশের
সিনিয়র নায়েবে আমীর মাওলানা জুবায়ের আহমদ আনসারীর নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ১০টায়
তার প্রতিষ্ঠিত সরাইলের জামিয়া রহমানিয়া বেড়তলা মাদরাসায় অনুষ্ঠেয় এ নামাজে জানাজায় প্রায় লাখো
মানুষ অংশ নেন। মাদরাসার প্রান্তর ছাড়িয়ে জানাজার সারি দীর্ঘ হয় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কেও। এতে দেশের
বিভিন্ন স্থান এবং জেলার শীর্ষ আলেমরা ছাড়াও মাদরাসা ছাত্র এবং সাধারণ মানুষ যোগ দেন।

যেখানে গণজামায়ত নিষিদ্ধ করেছে সরকার সেখানে জ্ঞানকাণ্ডহীন জনতার কাণ্ডকারখানা দেখে সত্যি অবাগ
লাগছে। একটা বিষয় চিন্তা করে দেখুনতো, যেখানে করোনার প্রতিরোধ হিসেবে জুম্মার নামাজ স্থগিত করেছে।
কোনো মসজিদে ১০ জনের বেশি লোক জামাত করে জুম্মার নামাজ আদায় করতে পারবে না। এবং ৫ জনের 
বেশি লোক মসজিদে ওয়াক্ত নামাজ আদায় করতে পারবে না সেখানে লাখ মানুষ এক সঙ্গে জানাজা নামাজ 
আদায় করছে। শবে ই বরাত এর নামাজ পর্যন্ত বাসায় পড়তে বলা হয়েছে সেখানে জানাজা নামাজ পড়তে
 আমরা লাখ লাখ মানুষ সমবিত হচ্ছি। কী পরিমাণ জ্ঞানহীন হয়ে পরেছি আমরা?

আসুন করোনাভাইরাস নামক একই অভিশপ্ত ভাইরাসের প্রকোপ থেকে দেশকে রক্ষা করুন। দেশে ও দশের
 কল্যাণে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করি। হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করি। দেশটা আমাদের তাই দেশের এই
মহামারি আমাদেরই সচেতন থেকে রক্ষা করতে হবে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার