মালয়েশিয়া সারাওয়াক প্রদেশের চিফ - মিনিস্টার ও গভর্ণরের সঙ্গে রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ

Img

মালয়েশিয়া সারাওয়াক প্রদেশের গভর্ণর ও-চিফ মিনিস্টারের সঙ্গে মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সাক্ষাৎ করেছেন।
দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে, মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার  শহীদুল ইসলাম ২৬ জুলাই সকাল ১০ টায় সারাওয়াক প্রদেশের চিফ মিনিস্টার দাতুক পাটিংগি আবাং হাজি আবদুল রহমান জোহারি বিন তুন দাতুক আবাং হাজি ওপেং  এবং ২৭ জুলাই সারাওয়াক প্রদেশের গভর্ণর তুন পেহিন সেরি হাজি আবদুল তাইব মাহমুদ এর সাথে পৃথক পৃথক তাদের অফিসে সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাৎকালে সারাওয়াক প্রদেশে বিভিন্ন সেক্টরে বাংলাদেশ হতে শ্রমিক নিয়োগ,বাণিজ্যিক প্রসার, বিনিয়োগ এবং শিক্ষা বিষয়ে আলোচনা হয়।
চিফ মিনিস্টার জানান সারাওয়াক প্রদেশ বর্তমানে এগ্রিকালচার, কনস্ট্রাকশন এবং ই-ইকোনমি সেক্টরে বিশেষ অগ্রাধিকার প্রদান করেছে এবং এসকল সেক্টরে বাংলাদেশ হতে সিস্টেমেটিক দ্বি-পাক্ষিক আলোচনার মাধ্যমে শ্রমিক নিয়োগে আগ্রহী। মালয়েশিয়া যেহেতু বাংলাদেশকে সোর্স কান্ট্রি করে শ্রম নিয়োজন শুরু করেছে সেহেতু সারাওয়াক সরকারকেও অনুরুপভাবে শ্রম নিয়োজনের জন্য অনুরোধ করা হলে চিফ মিনিস্টার আশা প্রকাশ করেন এবং বলেন যে সারাওয়াকের নিজস্ব নিয়ম কানুন ও পলিসি আছে সে মোতাবেক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।
চিফ মিনিস্টারকে জানানো হয় যে, তথ্য প্রযুক্তি ক্ষেত্রে বাংলাদেশ যথেষ্ট এগিয়ে রয়েছে। সে মোতাবেক বাংলাদেশ হতে প্রযুক্তিতে অভিজ্ঞ ও দক্ষ লোক নিয়োগ করতে পারে।
সাক্ষাৎকালে সাম্প্রতিক সময়ে মায়ানমারের রাখাইন প্রদেশের নির্যাতিতরা বিপুল পরিমানে বাংলাদেশে আশ্রয় নিচ্ছে এবং বাংলাদেশ এ সকল অসহায় লোকদের পাশে থেকে যে মানবতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে তাতে সাধুবাদ জানান এবং পাশে থাকার আশ্বাস দেন। তিনি রোহিঙ্গা সমস্যার আশু সুষ্ঠু সমাধান প্রত্যাশা করেন।
এ ছাড়া মালয়েশিয়ায় কর্মরত বাংলাদেশি শ্রমিকদের প্রশংসা করে চিফ মিনিষ্টার বলেন, এক মাত্র বাংলাদেশি শ্রমিকরাই কাজে মনোযোগি বেশি। তারা কাজকে পছন্দ করে। কাজের প্রতি তাদের অগাদ বিশ্বাস।
সাক্ষাৎকালে মিনিষ্টার পলিটিক্যাল মো: রাইছ হাসান সারোয়ার, শ্রম কাউন্সিলর মো: সায়েদুল ইসলাম, প্রথম সচিব (বাণিজ্য) উপস্থিত ছিলেন।

পূর্ববর্তী সংবাদ

অারব অামিরাতে কেটিভির পক্ষ থেকে বিস্কুট বিতরণ।

সংযুক্ত অারব অামিরাতে প্রবাসী বাংলাদেশীদের মাঝে কেটিভি অারব অামিরাত প্রতিনিধি মো. নূরুল্লাহ খান শাজাহান ও ঢাকা জেনারেল মেনটিনিস কম্পানির পরিচালক মো. অাক্তার হোসেনের সৌজন্যে প্রবাসী বাংলাদেশীদের মাঝে বিস্কুট বিতরণ করা হয়।

কেটিভি'র অারব অামিরাত প্রতিনিধি মো. নূরুল্লাহ খান শাজাহান এর পক্ষ থেকে কেটিভি'র দর্শক নিয়ে কয়েক'শ শ্রমিকের মাঝে বিস্কুট বিতরন করা হয়। কেটিভি বাংলা অনলাইন চ্যানেল হলেও অারব অামিরাতে কেটিভি এখন সবার চোখের মণি হয়ে অাছে। কে

টিভির সংবাদ মানসম্মত এবং এডিটিং বা খবরের ধরন যেনো ভিন্ন রকম, কেটিভি বাংলা নিউজের সাথে অাছি থাকবো এমন কথা বল্লেন কেটিভি বাংলার এক দর্শক শারজাহ অালীমোছার মো. সাখাওয়াত হোসেন। কেটিভি বাংলার বিভিন্ন নিউজ,ইসলামিক অালোচানা, ইসলামিক গজল, ছবি, গান, প্রচারের কারনে অনলাইনে দর্শক ও বেড়েছে অনেক।

কেটিভি'র চেয়ারম্যান মো. মামুনুর হাসান টিপু সাহেবের মনোভাব অার দিক নির্দেশনায় কেটিভি এখন অারব অামিরাত সহ বিশ্বের কয়েকটি দেশে অসহায় মানুষের পাশে দাড়াতে সক্ষম হয়েছে। কেটিভি'র পক্ষ থেকে অারব অামিরাতের দুবাই, শারজাহ অালীমোছা, ক্যাপিটাল ক্যাম্প,অাজমান সহ কয়েকটি স্থানে লেবারদের মাঝে বিতরণ করা হয় বিস্কুট।

পরে অারব অামিরাতে কর্মরত বাংলাদেশী, পাকিস্থান, ইন্ডিয়া সহ কয়েকটি দেশের শ্রমিকের মাঝে বিস্কুট বিতরণ করাতে তারা কেটিভি কে ধন্যবাদ জানায়। অারো উপস্থিত ছিলেন, ক্যাপিটাল ক্যাম্পের সহকারী ক্যাম্পবস দূরগা। সে হিন্দি ভাষায় কেটিভি'র সাফল্য কামনা করে ধন্যবাদ জানান।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার