মালয়েশিয়ায় পরিবেশ দূষণ ও অবৈধভাবে কাজ করায় রোহিঙ্গাসহ ২২ অভিবাসী আটক

image
image

পরিবেশ দূষণ ও অনুমতি ছাড়া ব্যবসা ও কাজ করার দায়ে রোহিঙ্গা শরনার্থীসহ ২২ জন অভিবাসীকে গ্রেফতার করে বিচারের মুখোমুখি করেছে মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগ।

তবে আটককৃতদের মধ্যে কতজন রোহিঙ্গা শরনার্থী ও কোন দেশের কতজন তদন্তের স্বার্থে তাদের বিস্তারিত পরিচয় প্রকাশ করেনি ইমিগ্রেশন পুলিশ। 

বুধবার (১৯ আগষ্ট) বিকাল ৪ টা থেকে কুয়ালালামপুর কেতেরহ শহরের তিনটি এলাকায় ৩ ঘন্টা ইন্টিগ্রেটেট ক্লিন অপারেশন চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে দেশটির সংবাদ মাধ্যমে সিনার হারিয়ান এই তথ্য প্রকাশ করেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আবাসিক এলাকা, মুদির দোকান বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালানো হয়। তাদের বিরুদ্ধে স্থানীয়দের পক্ষ হতে অস্বাস্ব্যকর ও নোংরা পরিবেশ সৃষ্টি করার অভিযোগের পর অভিযান পরিচালনা করা হয়। দেশটিতে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীরা ইউএনসিএইচআর (জাতিসংঘের শরনার্থী)হিসেবে  কার্ডধারী হওয়ায় তাদের কোন কাজ করার অনুমতি নেই। দেশটিতে অসংখ্য রোহিঙ্গা শরনার্থী বিভিন্ন সেক্টরে অবৈধভাবে কাজ করছেন। জাতিগত গোষ্ঠীটি কুয়ালালামপুর মেলর, কাদোক এবং কোক লানাসের উন্নয়নশীল শহরতলিতে শ্রমিক হিসাবে কাজ করে।

কেতেরে পারবান্দারান ইসলাম জেলা কাউন্সিলের (এমডিকেপিআই) এনফোর্সমেন্ট এবং আইন বিভাগের প্রধান, মোহাম্মদ নূর আফেন্দী আবদুল শুকর সংবাদ মাধ্যম কে বলেছেন, অনূর্ধ্ব ৫০ বছর বয়সী মোট ২২ বিদেশী অভিবাসী কোন ডকুমেন্টস না থাকা ও দোকানের লাইসেন্স এর শর্ত ভঙ্গ এবং পরিবেশ নোংরা করা ইত্যাদি কারনে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। 

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশন বিভাগের (ইমিগ্রেশন) ক্যালানটান, আমরণ আবদ আজিজের এনফোর্সমেন্ট বিভাগের উপ-প্রধান, তিনি বলেন, "আটককৃত সকলকে পরবর্তী পদক্ষেপের জন্য মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশন বিভাগ কেলানটনের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে এবং তাদের ডিটেনশন ডিপোতে পাঠানোর আগে করোনাভাইরাস স্ক্রিনিং (কোভিড -১৯) সহ স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার