মালয়েশিয়ায় অবৈধভাবে সিগারেট তৈরি ও পাচারের দায়ে বাংলাদেশীসহ আটক ৩

image
image

মালয়েশিয়ায় সিগারেট, গুল তৈরী করে শুল্ক ফাঁকি দিয়ে বিক্রি এবং পাচার সিন্ডিকিটের দুই বাংলাদেশিসহ ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে দেশটির শুল্ক বিভাগ।

গত রোববার থেকে ধাপে ধাপে পরিচালিত দেশটির সিম্পাং পুলাই এবং বন্দর সেরি বোটানীর দুটি চত্বরে সেন্ট্রাল জোন রয়্যাল মালয়েশিযার শুল্ক বিভাগ (জেপিডিএম), ইউনিট ২  এর দুটি অভিযানে এসব মাদক পাচার সিন্ডিকেটের সদস্যদের গ্রেফতার করে। বুধবার (৯ জুন) দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা বারনামা এ তথ্য জানিয়েছে।

গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে একজন বাংলাদেশি মালয়েশিয়ান খেতাব প্রাপ্ত দাতু  এবং একজন মালয়েশিযান দাতুক সেরিও  রয়েছে। ধৃতরা হচ্ছে- দাতুক সেরি সাঊদ বিন ইবরাহিম (মালয়েশিয়ান), দাতু আজম ও নূরুল আমিন। এদের মধ্যে একজন বাংলাদেশি মালয়েশিয়ান স্ত্রী রয়েছে। তার সহযোগিতায় সিগারেট, গুল সহ তামাকজাত পন্য উৎপাদন করে ভ্যাট ছাড়া বাংলাদেশি, ভারত ও নেপাল প্রবাসীদের কাছে বিক্রি করা হত।

সেন্ট্রাল জোন এনফোর্সমেন্ট অপারেশনস ডিরেক্টর রামেলি আহমদ জানান, সিম্পাং পুলাই এবং বন্দর সেরি বোটানীর দুটি চত্বরে অভিযান চালিয়ে ৩,৩৭১.৮৬ কিলোগ্রাম (কেজি) চিবুক (তামাক) আটক করে। যার মূল্য ২১১,৫৮৭৮৭.৯৮ রিঙ্গিত।

প্রথম অভিযানে জেডিডিএমকে পাওয়া যায় বেশ কয়েকটি সাদা তামাকের বস্তা ২,০৫২.১৬ কেজি ওজনের তামাক এবং দ্বিতীয় অভিযানে আরও ১,৩৯৯.৭০০ কেজি তামাক পাওয়া গেছে।

শুল্ক কর্মকর্তা বুধবার ১০ জুন এক বিবৃতিতে বলেছেলেন, সিন্ডিকেটটি তামাক প্রক্রিয়াজাতকরণ এবং প্যাকিং করার জন্য ব্যবহৃত করতো বলে মনে করা হয় এমন ১২,৫০০ রিঙ্গিত মূল্যবানের বেশ কয়েকটি মেশিনও জব্দ করেছে এবং আরও তদন্তের জন্য প্রথম অভিযানে ওই দুই বাংলাদেশি ম্যানেজারকে গ্রেফতার করে শুল্ক বিভাগ।

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে শুল্ক আইন ১৯৬৭৬৭ এর ১৩ ১৩ (১) (ডি) ধারায় আরও তদন্ত করা হচ্ছে। অপরাধ প্রমানিত হলে তাদের বিরুদ্ধে ৫ বছর থেকে  সর্বোচ্চ ৭ বছরের কারাদন্ড  হতে পারে বলে জানান শুল্ক কর্মকর্তা।

তিনি আরো বলেন,  তাছাড়া প্রথম আটককৃত তামাকের এর প্রকৃত মুল্যের প্রায় দশগুন এবং ২য় অভিযানে আটক তামাক মুল্যের প্রায় ২০ গুন জরিমানা হতে পারে।  

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার