মালয়েশিয়ার জহুরবারুতে বাংলাদেশিকে থাপ্পর মারা ইমিগ্রেশন কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করা হচ্ছে

Img

একজন বাংলাদেশিকে থাপ্পড় মারার অপরাধে মালয়েশিয়ার অভিবাসন (ইমিগ্রেশন) বিভাগের একজন কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করতে যাচ্ছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। সংবাদমাধ্যম মালয়েশিয়া পোস্ট জানিয়েছে- ঘটনার শিকার বাংলাদেশি গত ৩ মে সকাল ৯টার দিকে কাউন্টারে দাঁড়িয়ে সে দেশের স্বেচ্ছা প্রত্যাবাসন ৩+১ কর্মসূচির আওতায় আবেদন করছিলেন।

সে সময় কাউন্টারের থাকা এক কর্মকর্তা তাঁকে চড় মারেন এবং তাঁর হাতে কিল দিয়ে মেশিনে হাতের ছাপ নেন। ঘটনার ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে এবং রীতিমত ভাইরাল হয়। মালয়েশিয়ার জহর রাজ্যের অভিবাসন বিভাগের পরিচালক দাতুক রোহাইজি বাহারি সংবাদমাধ্যমটিকে বলেন, ঘটনার পর সেই কর্মকর্তাকে তাৎক্ষণিক ফ্রন্ট ডেস্কের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

পরে অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক দাতুক সেরি মুস্তফা আলী এক বার্তায় বলেন, এমন ঘটনায় মালয়েশিয়ার অভিবাসনের সুনাম নষ্ট হয়েছে। তিনি বলেন, “আমরা সেই কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করার বিষয়টি বিবেচনা করছি। ডিসিপ্লিনারি রেগুলেশন ফর পাবলিক সার্ভেন্টস ২০০২ এর আইন অনুযায়ী তাঁর বিরুদ্ধে নিয়ম ভঙ্গের দায়ে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। 

পূর্ববর্তী সংবাদ

খেলা বন্ধ করে ইফতার করলেন তিউনিশিয়ার খেলোয়াড়রা

ঘড়ির কাটা ঘুরতে ঘুরতে চলে এলো বিশ্বকাপের মাস। আর সপ্তাহ দুয়েক পরই রাশিয়ার ১২টি মাঠ জুড়ে শুরু হবে গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ খ্যাত বিশ্বকাপ ফুটবল। ৩২ দলের অংশগ্রহণের দীর্ঘ একমাসের যুদ্ধের পর যে কোন একটি দলের ঘরে ওঠবে সোনালী ট্রফি। এবার হবে বিশ্বকাপ ফুটবলের ২১তম আসর। চূড়ান্ত পর্বে নামার আগে অংশগ্রহণকারী দলগুলো নিজেদের ঝালিয়ে নেয়ার জন্য প্রস্তুতি ম্যাচে অংশ নিচ্ছে।

বিশ্বকাপের মাসে চলছে মুসলমানদের পবিত্র রমজান মাস। সারা বিশ্বের মুসলিমদের জন্য সিয়াম সাধনার মাধ্যমে মহান সৃষ্টিকর্তার নৈকট্য লাভের একটি মাস। ইসলামের অন্যতম প্রধান এই বিধি পালনে পিছিয়ে থাকেন না ক্রীড়াবিদরাও। কিন্তু খেলা চলাকালীন রোজা রাখাটা বেশ মুশকিলই বটে। বিশেষ করে খেলার মধ্যেই ইফতারের সময় হয়ে গেলে বিপাকেই পড়তে হয় খেলোয়াড়দের।

এবারের বিশ্বকাপে সাতটি মুসলিম দেশ অংশগ্রহণ করছে। পাশাপাশি বিশ্বের বড় দলগুলোতেও মুসলিম খেলোয়াড় রয়েছে। রমজানে সময়ে খেলার সময় ইফতারি করার জন্য অভিনব এক পন্থা বের করেছে তিউনিশিয়া ফুটবল দল। গত ২৯ মে এবং ২ জুন পর্তুগাল এবং তুরস্কের বিপক্ষে ম্যাচে রোজা রেখেই খেলতে নামে তিউনিশিয়া।

দুই ম্যাচেই ২-২ গোলে ড্র করে তারা। তবে ম্যাচের ফল ছাপিয়ে আলোচনায় এসেছে তিউনিশিয়ার খেলোয়াড়দের ইফতার করার প্রক্রিয়া। তুরস্কের বিপক্ষে ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধ শুরু হতেই সময় হয় ইফতারের। কিন্তু তখন মাঠে দৌড়াচ্ছেন তিউনিশিয়ার ফুটবলাররা। ঠিক তখনই ইনজুরিতে পড়ার অভিনয় করেন তিউনিশিয়ার গোলরক্ষক ময়েজ হাসান। যার ফলে রেফারি খেলা থামানোর বাঁশি বাজান এবং এই সুযোগে পানি খেয়ে রোজা ভাঙেন তিউনিশিয়ার খেলোয়াড়রা। সারাদিনের রোজা থাকার ক্লান্তি দূর করতে কয়েকটি খেজুরও খেয়ে নেন তারা।

এই ‘ইফতার’ পর্বের ৬ মিনিট পরেই ম্যাচের সমতাসূচক গোলটি পায় তিউনিশিয়া। আফ্রিকা অঞ্চলের দেশ তিউনিসিয়ার জনগণের প্রায় ৯৮ শতাংশই মুসলিম। আর দেশটির বেশিরভাগ মানুষই ধর্মপ্রাণ। তাইতো রজমান মাসে খেলা চললেও রোজা রাখা থেকে বিরত থাকেননি দেশটির ফুটবলাররা। খেলা চলাকালীন ইফতারির সময় হওয়াতেই মূলত গোলরক্ষক হাসানকে এমন অভিনয় করতে দেখা যায়।

আগামী ১০ জুন স্পেনের বিপক্ষে বিশ্বকাপের আগে নিজেদের শেষ প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে তিউনিশিয়া। সেই ম্যাচেও হয়তো একইভাবে ইফতার করবেন আফ্রিকা মহাদেশের দেশটি। ২০০৬ সালের পর প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ খেলতে এসে ‘জি’ গ্রুপে রয়েছে তিউনিশিয়া।

গ্রুপে তাদের তিন প্রতিপক্ষ বেলজিয়াম, পানামা এবং ইংল্যান্ড। ১৯ জুন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে তাদের বিশ্বকাপ মিশন। ২৩ জুন বেলজিয়াম এবং ২৯ জুন পানামার বিপক্ষে হবে তিউনিশিয়ার অন্য দুটি ম্যাচ।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার