মালয়েশিয়ার বিভিন্ন বাহিনী দিয়ে পরিচালিত অবৈধ অভিবাসন বিরোধী অভিযান জোরদার হচ্ছে। অবৈধ অভিবাসীদের বিরুদ্ধে চিরুনি অভিযানে প্রতিদিনই গ্রেফতারের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশের অভিবাসীরা। সম্প্রতি সময়ে বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর সফর কিছুটা আশার আলো জাগলেও বাস্তবে মালয়েশিয়া এখনো অনড় অবস্থানে রয়েছে অবৈধ শ্রমিকদের গ্রেফতারে। 

এদিকে মালয়েশিয়া প্রবাসীরা চান, নতুন শ্রম বাজার খোলার থেকে অবৈধ এবং আটক বাংলাদেশীদের জন্য বৈধতার সুযোগ সহ জেল জরিমানা ছাড়াই দেশে যাওয়ার জন্য বেবস্থা করা।

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে ৩ জুন পর্যন্ত ৫ হাজারের বেশি বাংলাদেশিসহ আটক করা হয় ২৮ হাজার ২৮৬ জনকে। মালয়েশিয়া অভিবাসন বিভাগের প্রধান দাতুক খায়রুল দাজামি স্থানীয় সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। গত ২৭ মে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিজেই একটি অভিযানে অংশ নিয়ে অবৈধ অভিবাসীদের গ্রেফতারের প্রতিজ্ঞা ব্যক্ত করেন।

আটক হওয়া বিভিন্ন অভিবাসিদের মধ্যে ৫ হাজার ২৭২ জন বাংলাদেশিদের মধ্যে কতজন বাংলাদেশী এখনো জেলে আটক আছেন তার সঠিক সংবাদ জানা যায়নি। সেই সাথে আটক করা হয় ইন্দোনেশিয়ার ৮ হাজার ৬, মায়ানমারের ২হাজার ৩২৭, ফিলিপাইন ২ হাজার ২২, থাইল্যান্ডের ১ হাজার ২৭২, ইন্ডিয়ার ১ হাজার ২২৯, ভিয়েতনামের ৭৯৪, পাকিস্তানের ৭৭৫ জন। বাকিরা বিভিন্ন দেশের নাগরিক।

মালয়েশিয়া সরকারের বৈধ হওয়ার সুযোগ দিলেও প্রতারণার শিকার হয়ে অনেকেই বৈধতা না পেয়ে অবৈধ রয়ে যায়। এছাড়াও প্রফেশনাল ভিসায় এসে অবৈধ হয়ে যায় বহু বাংলাদেশি। একাধিক সূত্রে প্রকাশ,অবৈধভাবে অবস্থান করা বিদেশি শ্রমিকদের যে কোন মূল্যে গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ইতোমধ্যেই বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী একাধিক বার বৈঠক করেন মালয়েশিয়া সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ের সাথে।

মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত অবৈধ অভিবাসীদের বৈধ এবং দেশে যাওয়ার সুযোগসহ শ্রম বাজার খোলার জন্য। কিন্তু মালয়েশিয়া এখনো অনড় অবস্থানে রয়েছে। ইতোমধ্যেই মালয়েশিয়ার মানব সম্পদ মন্ত্রী ঘোষণা করেন, নতুন শ্রমিক নয় বরং বিগত দিনে যারা এদেশে ছিলেন তারা বিগত কম্পানিতে আসতে পারবে যদি মালিক পক্ষ চায়। এব্যাপারে জানতে চাইলে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি ব্যবসায়ী জানান, মালয়েশিয়ায় আসতে হলে বয়স ৩৫ নিচে হতে হবে। তাহলে কি ভাবে পুরোনো শ্রমিকরা আসবে।

তিনি আরো বলেন, মালয়েশিয়ার প্রয়োজন অনুযায়ী শ্রমবাজার খুলবে। নতুন শ্রমবাজার খোলার আগে মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত অবৈধ বাংলাদেশিরা যেন বৈধতা এবং জেল জরিমানা ছাড়াই দেশে যেতে পারে সেই ব্যবস্থা করা জরুরি। উল্লেখ্য,ইতোমধ্যেই ঈদ উপলক্ষে আটক ৩ শতাধিক পাকিস্তানের নাগরিকদের দেশে ফিরিয়ে আনে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সরকার।