মহাকাশ থেকে পৃথিবীর দিনরাত, আশ্চর্যজনক ছবি প্রকাশ

Img

৩১ মে, ২০২০, নাসা থেকে দুই মহাকাশচারী পাড়ি দিলেন International Space Station–এর উদ্দেশ্যে। ঐতিহাসিক এই যাত্রা নিয়ে আলোচনা তখন থেকেই। স্পেস স্টেশনে পৌঁছানোর পর থেকেই মহাকাশচারীরা একের পর এক ছবি শেয়ার করছেন পৃথিবীর, যা দেখলে অবাক হয়ে যেতে হয়।

এবার তারা শেয়ার করলেন একটি ছবি, যেখানে দেখা যাচ্ছে কীভাবে পৃথিবীর একদিকে দিন আর অন্যদিকে রাত হচ্ছে। মহাজাগতিক নিয়ম এমনই। পৃথিবীর এক অর্ধে যখন সূর্যের আলো এসে পড়ে, তখন অন্য অর্ধ থাকে অন্ধকার।

অর্থাৎ একদিকে থাকে দিন, অন্যদিকে রাত। কিন্তু মহাকাশ থেকে সেই দৃশ্য কেমন লাগে, তাই ধরা পড়েছে ক্যামেরায়।মহাকাশচারী বব বেহনকেন টুইটারে এই ছবি শেয়ার করে লিখেছেন, ‘‌আমাদের পৃথিবীর এই দৃশ্য আমার সবচেয়ে পছন্দের।

পৃথিবীর দুই অর্ধে দিন রাতের সীমান্ত এটি।’‌ শেয়ার করার পর থেকে টুইটটি ভাইরাল হয়েছে  নেট দুনিয়ায়, অসংখ্য বার রিটুইট করেছেন অনেকেই। মহাকাশ থেকে এমন মহাজাগতিক দৃশ্য দেখলে কে না পছন্দ করবে। ‌সূত্র : নিউজ ১৮।

পূর্ববর্তী সংবাদ

এবার চীনের বিরুদ্ধে ভারতের ‘ডিজিটাল স্ট্রাইক’

পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ‘সার্জিকাল স্ট্রাইকের’ পর এবার চীনের বিরুদ্ধে ‘ডিজিটাল স্ট্রাইক’ শুরু করেছে ভারত! সোমবার টিকটক, ইউসি ব্রাউজার, শেয়ার-ইট, উই-চ্যাট ও ক্যামস্ক্যানারসহ ৫৯টি মোবাইল অ্যাপ নিষিদ্ধ করল কেন্দ্র। 

দেশটির তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদের দাবি, ‘ভারতের সুরক্ষা, সংহতি, নিরাপত্তা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষা এবং এ দেশের সাধারণ মানুষের তথ্যের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেই আইনের ৬৯(ক) ধারায় এই সিদ্ধান্ত। লাদাখ সীমান্তে চীন-ভারত সংঘাতের আবহে এই ঘোষণা স্বাভাবিকভাবেই তাৎপর্যপূর্ণ।

বিশেষত যেখানে নিষেধের তালিকায় বহুল পরিচিত চীনা অ্যাপের ছড়াছড়ি এবং শুধুমাত্র দেশীয় পণ্য কেনার কথা নিয়ম করে বলছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। ভারতের প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো এক টুইট বার্তায় জানিয়েছে, ভারত সরকার দেশটির সার্বভৌমত্ব ও অখণ্ডতা এবং প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তার স্বার্থে এই অ্যাপগুলো নিষিদ্ধ করেছে।

ভারত সরকার বলছে এই পদক্ষেপ ভারতের কোটি কোটি মোবাইল ও ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর স্বার্থ রক্ষা করবে।ভারতের সাইবার স্পেসের নিরাপত্তা ও সার্বভৌমত্ব অক্ষুণ্ন রাখতে এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে পিআইবির টুইটে জানানো হয়।

শোনা যাচ্ছে, প্রথমত, গুগল প্লে কিংবা অ্যাপলের অ্যাপ স্টোরের থেকে নতুন করে ডাউনলোড ‘ব্লক’ করতে বলা হবে। আর দ্বিতীয়ত, ইন্টারনেট পরিষেবা সংস্থাগুলোকে বলা হবে, ওই অ্যাপগুলোর জন্য নেট না-দিতে। এই সমস্ত অ্যাপ ব্যবহারকারীর সংখ্যা ভারতে অবশ্য বিপুল। শুধু টিকটকেরই ১০ কোটির বেশি! সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার