ব্রিটিশ সরকারের উপর ব্যাপক চাপ বৃদ্ধি

Img

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় আজ সোমবার হতে ব্রিটেন জুরে রুল অব সিক্স কার্যকর করা হয়েছে। সারা পৃথিবীতে শীত আসন্ন এই প্রেক্ষিতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় ইসরাইলে দ্বিতীয় দফা লকডাউন আরোপ করা হয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে এখনই যদি ব্রিটেন কঠোর নিয়ন্ত্রণ আরোপ না করে তবে অচিরেই আবারো লকডাউনে যেতে হতে পারে। বিশেষজ্ঞদের পক্ষ হতে সরকারের উপর চাপ প্রদান করা হচ্ছে যাতে সরকার এখনই সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। 

রুল অব সিক্স আজ হতে কার্যকর করা হলেও কিছু ক্ষেত্র এর বাইরে থাকবে। নতুন আইন অনুযায়ী জিম, স্কুল, ফিউনিরাল, বিয়ে এবং কর্মস্থলে বসবার জায়গা এই আইনের বাইরে থাকবে। সব চাইতে উল্লেখ যোগ্য বিষয় হচ্ছে এবার সরকার আইন করে ছয় জনের বেশি মানুষের মিলিত হওয়া বন্ধ করল এর আগে যা কেবলই ছিল গাইড লাইন। কোথাও ছয় জনের বেশি মানুষ মিলিত হলে দণ্ড হিসেবে এক শত পাউন্ড হতে তিন হাজার দুই শত পাউন্ড জরিমানা করতে পারবে। প্রয়োজনে তাদেরকে আদালতে নিয়ে যেতে পারবে এবং সে ক্ষেত্রে সাজার পরিমাণ আরও বেশি হতে পারে। 

এদিকে ব্রেক্সিট নিয়ে নতুন করে আলোচনা শুরু হয়েছে। আগামী ডিসেম্বরে মধ্যবর্তী সময় শেষ হয়ে যাবে। গত বুধবার প্রধান মন্ত্রী বরিস জনসন ইন্টারনাল মার্কেট বিল নামে একটি নতুন বিল ঘোষণা করেন। এই বিলের ধারার বিষয়ে ইউ আপত্তি জানিয়েছে। তাদের ভাষ্য মতে যেই বিষয় গুলোর উপর ভিত্তি করে এত দিন দুই পক্ষের মধ্য দর কষাকষি চলে আসছিল নতুন এই বিলের মাধ্যমে তার কিছু পরিবর্তন আনেছে ব্রিটিশ সরকার। 

করোনা এবং ব্রেক্সিট বিষয় দুটি নিয়ে ব্রিটিশ সরকারের উপর দেশটির রাজনিতিক দের ব্যপক চাপ বৃদ্ধি পাচ্ছে। কনজারভেটিভ পার্টি সাবেক প্রধান মন্ত্রী জন মেজর, ডেভিড ক্যামরন থেরেসা মে এবং লেবার পার্টির সাবেক প্রধান মন্ত্রী টনি ব্লেয়ার, গর্দন ব্রাওনসহ ব্যাপক সংখ্যক রাজনীতিবিদ নতুন এই বিলকে আন্তর্জাতিক আইনের বরখেলাফ বলে মনে করছেন। বিলটি নিয়ে আজ সোমবার পার্লামেনটে আলোচনার দিন ধার্য আছে।

পূর্ববর্তী সংবাদ

ফুলের রশি’ দিয়ে গাড়ি টেনে রাজশাহীর ডিআইজিকে বিদায়

সদ্য বদলি হওয়া পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) একেএম হাফিজ আক্তার তার সরকারি বাসভবন ছেড়েছেন। 

সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকালে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে এই বাড়ি থেকে বের হন।

এ সময় পুলিশ সদস্যরা ফুলের রশি দিয়ে গাড়ি টেনে তাকে রাস্তায় তুলে দেন। গাড়ির সামনের দিকে বাধা দুটি রশি গাঁদা ফুল দিয়ে সাজানো হয়েছিল। ডিআইজির জিপটিকেও সাজিয়ে দেয়া হয়েছিল ফুল দিয়ে। ডিআইজির বিদায়ের সময় অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তারা আবেগাপ্লুত হয়ে ওঠেন।

এর আগে বিদায়ী ডিআইজি তার বাংলোয় বিদায়ী সালামি ও শুভেচ্ছা গ্রহণ করেন। এ সময় তাকে শুভেচ্ছা জানান পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি (প্রশাসন ও অর্থ) টিএম মোজাহিদুল ইসলাম, রাজশাহী পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শহিদুল্লাহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

গত ২ সেপ্টেম্বর এক প্রজ্ঞাপনে একেএম হাফিজ আক্তারকে ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার হিসেবে পদায়ন করা হয়েছে। রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি হওয়ার আগে তিনি রাজশাহী মহানগর পুলিশের কমিশনার ছিলেন।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার