২০০৩ সালে সনিসহ অন্যান্য কোম্পানি যখন মোবাইলে ফ্রন্টফেসিং ক্যামেরা যুক্ত করা শুরু করে, তখন তার উদ্দেশ্য ছিল ভিডিও কলের মাধ্যমে ব্যবসায়িক মিটিং করার সুবিধা দেয়া। কিন্তু এ ক্যামেরার সংযুক্তি যে একসময় সেলফি তোলার মাধ্যম হয়ে উঠবে, তা ধারণা করেনি কেউ।

সময়ের বিবর্তনে সেলফি এখন এতই জনপ্রিয় যে, বিভিন্ন হোটেলে এখন থাকে সেলফি স্পট। চেক-ইনের সময় অতিথিদের সেলফি স্টিক দেয়ার অফারও করছেন অনেকে।

২০১৪ সালে মান্দারিন ওরিয়েন্টাল নামক হোটেল ‘সেলফি ইন প্যারিস’ নামে ফ্রান্সের রাজধানী ভ্রমণের একটি প্যাকেজ ট্যুরের ব্যবস্থা করেছিলো।

এছাড়া গ্রিসের রাজধানী এথেন্সের হোটেল গ্র্যান্ড ব্রেটানিয়ে অ্যাক্রোপলিসের সঙ্গে সেলফি তোলার সুযোগ করে দিতে হোটেলের ভেতর আয়োজন করেছিলো আলাদা স্পটের। আর ম্যারিয়ট হোটেল চেন ক্যালিফোর্নিয়ায় তাদের ডেজার্ট স্প্রিংস রিসোর্টে চেক-ইনের সময় ‘সেলফি স্টিক’ দেয়ার অফার দিয়ে থাকে সবসময়।

বাংলাদেশেও এখন প্রায় রেস্টুরেন্টগুলোতে থাকে সেলফি কর্নার। সেখানে মানুষ যত না খাচ্ছে, তারচেয়েও বেশি তুলছেন সেলফি। পরে তা ছড়িয়ে পড়ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। হচ্ছে ব্যবসার প্রসার।