বেনাপোলে টায়ারের মধ্যে মিলল ৪০০ বোতল ফেনসিডিল

Img

বেনাপোলে অভিনব কায়দায় পাচারের সময় টায়ারের মধ্যে মিলল ৪০০ বোতল ফেনসিডিল। সোমবার রাত সাড়ে ৯ টার সময় বিজিবি বেনাপোল পোর্ট খানার ছোট আঁচড়া মন্দিরের পাশ থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় ফেনসিডিলের এ চালানটি উদ্ধার করে। তবে কোন চোরাচালানি মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করতে পারেনি।

বেনাপোল ক্যাম্পের সুবেদার লাল মিয়া বলেন, গোপন সংবাদের মাধ্যেমে বেনাপোলের ছোট আঁচড়া মান্দির এলাকায় অভিযান চালিয়ে একটি বাসের টায়ার উদ্ধার করা হয়। এসময় চোরাচালানিরা বিজিবির উপস্থিতি বুঝতে পেরে পালিয়ে যায়। পরে টায়ারটি ক্যাম্পে এনে সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে খুলে ৪০০ বোতল ফেনসডিল পাওয়া যায়। ফেনসিডিলের চালানটি ভারত থেকে চোরাকারবারিরা নিয়ে এসেছে বলে তিনি জানান।

৪৯ বিজিবি অধিনায়ক লে, কর্নেল সেলিম রেজা বলেন, উদ্ধার হওয়া ফেনসিডিল যশোর ব্যাটালিয়নে এনে নষ্ট করে দেওয়া হবে।

পূর্ববর্তী সংবাদ

৫১টি পিকআপ ভ্যান নিয়ে বেনাপোলে প্রবেশ করল ভারতীয় ওয়াগান

ভারত থেকে টাটা মোটরস এর একটি পিকআপ ভ্যান বাহি ট্রেন বেনাপোল বন্দরে এসেছে।

মঙ্গলবার বেলা ৪টা ৫০মিনিটে ভারতের কোলকাতা থেকে ট্রেনটি বেনাপোল রেল ষ্টেশনে পৌছায়।

ভারতের ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া লিমিটেড এর এজেন্ট হিসাবে বাংলাদেশে কার্যক্রম পরিচালনা করছেন টিসিআই বাংলাদেশ লিমিটেড। এর ভেন্ডর পার্টনার হিসাবে কাজ করছে এম এম ইন্টার ন্যাশনাল নামে বেনাপোলের একটি সিএন্ডএফ এজেন্ড।

বেনাপোল বন্দরের উপ-পরিচলক মামুন কবির তরফদার বলেন, আমাদানি রফতানির নতুন দিগন্ত শুরু হওয়ার সুচনায় প্রথম দিন গত ২৬ জুলাই এসেছিল ফ্লাট ট্রেনে ৫০টি কন্টেইনার গার্মেন্টস সহ বিভিন্ন ধরনের পণ্য সামগ্রী। আজ টাটা মোটরস এর ৫১টি পিকআপ একসাথে একটি ওয়াগানে এসেছে। এতে আমদানি কারকদের খরচ সময় অনেকটা বাঁচবে। এভাবে আশা রাখি সহজে ভারত থেকে ওয়াগানে কন্টেইনার বোঝাই গার্মেন্টসের কাঁচামাল পণ্য আসা অব্যাহত থাকবে। সেই সাথে অন্যান্য পণ্য ও আসবে ট্রেনে।

এম এম ইন্টারন্যাশনালের ম্যানেজার মেহরুল্লাহ বলেন, আমরা ভারতের সাথে ওয়াগান ট্রেনে সকল ধরনের পণ্য আসায় পার্টনার হিসাবে কাজ করছি। ট্রেনে পণ্য আসলে অনেক সুবিধা ও নিরাপত্তা থাকে। এখন থেকে বেশীর ভাগ আমদানি পণ্য ভারত থেকে ট্রেনে আসবে। আবার রফতানি পণ্য ও ওয়াগানে ভারতে যাবে সে লক্ষে কাজ করা হচ্ছে।

বেনাপোল রেল ষ্টেশন মাস্টার সাইদুজ্জামান বলেন, ভারত থেকে ট্রেনে যে ৫১টি পিকআপ ভ্যান বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করেছে তার চার্জ হিসাবে রেল কর্তৃপক্ষ ১ লাখ ২৩ হাজার ৮ শত ২২ টাকা আদায় করেছে। তিনি বলেন, রেলের মাধ্যেমে পণ্য আসা যাওয়া করলে রেল খাতের ও উন্নয়ন হবে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার