কীটনাশকের ব্যবহার, আবাসস্থল হারানো এবং কৃত্রিম আলোর কারণে প্রায় ২ হাজার প্রজাতির জোনাকি যে কোনো সময় বিলুপ্ত হয়ে যেতে পারে। জীবনচক্র পূরণের জন্য সুনির্দিষ্ট আবহাওয়া প্রয়োজন জোনাকিদের। জার্নাল বায়োসায়েন্সে এ তথ্য জানিয়েছেন টাফটস বিশ্ববিদ্যালয়ের জীববিজ্ঞানের প্রফেসর সারা লিউস।

মালেয়শিয়ান জোনাকি হচ্ছে সমন্বিত আলোক বিচ্ছুরনের জন্য বিখ্যাত। তাদের প্রজননের জন্য ম্যানগ্রোভ বনভূমি অত্যন্ত জরুরি। অথচ এই বনভূমিগুলো পরিণত হয়েছে পম বাগানে। কৃত্রিম আলো আরেকটি বড় সমস্যা। জোনাকি টিকে থাকা নিয়ে এটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ হুমকি।

এদিকে মালেয়শিয়া, তাইওয়ান ও জাপানের মতো দেশগুলোয় ইদানিং বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে জোনাকি পর্যটন।

প্রতিবছর প্রায় ২ লাখ পর্যটক সংগৃহীত এসব জোনাকির তৈরি আলো দেখতে যাচ্ছেন। সংখ্যা কমে যাওয়ার এটিও একটি বড় কারণ বলে জানা গেছে।