বাদামের খোলায় লুকিয়ে ৪৫ লাখ টাকা পাচারের চেষ্টা

Img

রান্না করা মাংসের বল, বিস্কুট আর বাদামের খোলা আপাতদৃষ্টিতে খাবারের জিনিস এইসব। কিন্তু তাতে করেই পাচার হচ্ছিল ৪৫ লাখ বিদেশি মুদ্রা। কিন্তু শেষরক্ষা হল না দিল্লি বিমানবন্দরে এক যাত্রীর পকেট থেকে খোঁজ মিললো খাবারের সিল করা প্যাকেট। সঙ্গে সঙ্গে তাকে হেফাজতে নেয় সিআইএসএফ।

ইন্দিরা গান্ধি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে গ্রেফতার করা হয় মুরাদ আলি নামের এক ব্যক্তিকে। তিন নম্বর টার্মিনালে সন্দেহজনক ভাবে ঘোরাফেরা করতে দেখেই সন্দেহ হয় বিমানবন্দরের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা কর্মীদের। মুরাদ তখন দ্রুত দুবাইয়ের বিমান ধরতে ব্যস্ত।  নিয়ম মেনে চেকিংয়ের সময় ওই যাত্রীর কাছ থেকে পাওয়া যায় খাবারের প্যাকেটের মধ্যে লুকোনো ৪৫ হাজার বিদেশি মুদ্রা। অভিযুক্তের থেকে কোনও সদুত্তর না পাওয়ায় গ্রেফতার করা হয় তাকে।

টুইটারে সিআইএসএফের পক্ষ থেকে টুইটারে শেয়ার করা হয় একটি ভিডিও। দেখা গেছে, সৌদি রিয়াল, কাতারি রিয়াল, কুয়েতি দিনার, ওমানি রিয়াল এবং ইউরো মিলিয়ে প্রচুর মুদ্রা লুকিয়ে বাদামের খোলায়, বিস্কুটের প্যাকেটে, রান্না করা মাংসের বলে। একটা করে বাদামের খোলা ভাঙলেই বেরিয়ে আসছে মুদ্রা। একই ভাবে মাংসের টুকরো বা বিস্কুটের প্যাকেট ভাঙলে, খুললেই হুড়মুড়িয়ে বেরিয়ে আসছে নানা ধরনের বিদেশি মুদ্রা। কী কারণে এত মুদ্রা অভিযুক্ত নিয়ে দুবাইয়ে যাচ্ছিল, জানা যায়নি এখনও। 

অভিযুক্তকে গ্রেফতারের পাশাপাশি বাজেয়াপ্ত হয়েছে মুদ্রাও। নিরাপত্তা বাহিনির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, মুরাদ নাকি প্রায়ই দুবাইয়ের নানা জায়গায় সফর করত। সূত্র- এনডিটিভি

পূর্ববর্তী সংবাদ

দীর্ঘায়ুর রহস্য ফাঁস করলেন এক জাপানী

১১২ বছর বয়সী একজন জাপানী ব্যক্তি বিশ্বের প্রবীণতম ব্যক্তি হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছেন। তিনি তার দীর্ঘায়ু জীবন লাভের গোপন রহস্যের কথা বলেছেন। এই দীর্ঘজীবনের নেপথ্যের কারণ হিসেবে 'হাসি' কিংবা সবসময় হাসিখুশিতে থাকার বিষয়টি উল্লেখ করেছেন তিনি। 

ওই প্রবীণ ব্যক্তির নাম চিত্তসু ওয়াটানাবে। ১৯০৭ সালের ৫ মার্চ নাইটাটা প্রদেশের জোয়েতসুর নার্সিংহোমে তিনি জন্মগ্রহণ করেছেন।

সম্প্রতি তিনি গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ড সংস্থার কর্মকর্তার হাত থেকে সার্টিফিকেট গ্রহণ করেন। তিনি এখনও সুস্বাস্থ্যের অধিকারী বলে জানা গেছে। 

ওয়াটানাবের মেয়ের নাম তেরুকো তাকাহাশি। তিনি ৭৮ বছর বয়সী। তিনি বলেন, আমি বাবার দিকে চেয়ে থাকি, তার বয়স যাই হোক না কেন। 
 
এর আগে, বিশ্বের প্রবীণতম ব্যক্তি ছিলেন ম্যাসাজো নোনাকা। তিন হোক্কাইডোর বাসিন্দা ছিলেন। ১১৩ বছর বয়সে ২০১৯ সালের ২০ জানুয়ারী মারা যান তিনি। তিনি মারা যাওয়ার পরে ওয়াতানাবেকে সবচেয়ে বয়স্ক জীবিত ব্যক্তি হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়।

কৃষক পরিবারে জন্ম নিয়েছেন ওয়াটানাবে। তিনি ২০ বছর বয়সে তাইওয়ানে চলে আসেন। সেখানে ১৮ বছর কাটিয়েছিলেন তিনি।

তিনি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে জাপানে ফিরে আসেন। এরপর অবসর নেওয়ার আগ পর্যন্ত নিজ শহরে একজন সরকারী কর্মচারী হিসেবে কাজ করেন।

তাঁর পাঁচটি সন্তান, ১২ জন নাতি-নাতনি রয়েছে বলে পরিবারের সূত্রে জানা গেছে। 

প্রসঙ্গত, জাপান বিশ্বের শীর্ষ দেশগুলোর মধ্যে একটি যেখানে সবচেয়ে বেশি  দীর্ঘায়ু ব্যক্তিদের বাসস্থান। সূত্র: জাপান টাইমস 

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার