বাজার খরচ থেকে টাকা বাঁচানোর কার্যকরী ১২টি কৌশল

Img

আজকাল সবকিছুই তো মূল্যতে চড়া আর ক্রমশ বাড়ছে দাম। বিশেষ করে খাদ্য দ্রব্যের দামটা যেন কিছুতেই হাতের নাগালে নেই। তাই বলে কি খাওয়া দাওয়া বন্ধ রাখতে হবে?

জেনে নিন বাজেটের মাঝেই মনের মত সবকিছু কেনার কিছু গোপন টিপস। এই টিপসগুলো অবলম্বন করলে প্রত্যেক সপ্তাহেই বাজার থেকে বেশ কিছু টাকা বাঁচাতে পারবেন আপনি আর বাজেটের মাঝেই মিটে যাবে সমস্ত প্রয়োজন।

১) বিশেষ অফারগুলোর দিকে লক্ষ্য রাখুন। যেমন ধরুন প্রায়ই এটা কিনলে ওটা ফ্রি ধরণের প্রমোশাল অফার ছাড়া হয় বিশেষ পণ্যে, বা সেয়া হয় ২/৪ টাকা ছাড়। যেমন, দুধের সাথে চা পাতা ফ্রি হলে আপনার চা পাতার দামটা সাশ্রয় হলো না? এই অফার গুলোর সদ্ব্যবহার করুন। যে জিনিসটা লাগেই প্রতিদিন, সেটা অফার বুঝে কিনে ফেলুন।

২) বাজার করতে সবসময় সুপারশপে ঢুকে পড়বেন না। একটু বুঝে ঢুকুন যে কোথায় যাচ্ছেন আর কেন। অধিকাংশ সুপারশপেই বাজারের চাইতে অনেক জিনিসে দাম বেশী। সেই সাথে ভ্যাট দেয়ার হ্যাপা তো আছেই। আগে বাজার যাচাই করে নিন। যেখানে কম পাবেন সেখান থেকেই কিনুন।

৩) ছুটির দিনগুলোতে বাজারে সবকিছুর দাম চড়া থাকে, তাই ছুটির দিনে বাজার করা পরিহার করুন। যদি বাজার থেকেই কেনাকাটা করতে হয় সেক্ষেত্রে বৃহস্পতিবার রাত অর্থাৎ সপ্তাহের শেষ দিন ভালো সময়। কারণ শুক্রবার সকালে কাচাবাজারে সব নতুন পণ্য আসবে। বৃহস্পতিবার তাই কাঁচা বাজারের দোকানীদের চেষ্টা থাকে মজুদ পণ্য বিক্রি করে ফেলার।

৪) অন্যদিকে ছুটির দিনে অনেক সুপার শপেই বিশেষ অফার থাকে। ছাড় দিয়ে এটা-ওটা বিক্রি হয়। অফার বুঝে কোন একটা সুপার শপেও চলে যেতে পারেন।

৫) বেশ কিছু পণ্য আছে যেগুলো একসাথে বেশী কিনলে দরদাম করে কমে কেনা যায়। যেমন আলু, পেঁয়াজ, আদা, রসুন ইত্যাদি। এসব জিনিস সিজনের সময় একটু বেশী করে কিনে সংরক্ষন করুন। দেখনে অনেকগুলো টাকা বেঁচে যাবে।

৬) কখনোই রেডি করা খাবার কিনবেন না। যেমন ধরুন সবজি কেটে বিক্রি করা হয় বা মাংস মশলা দিয়ে মাখিয়ে রান্নার উপযোগী করে বিক্রি করা হয়। যে কাজটি আপনি নিজেই পারেন, সেটার জন্য সুপারশপকে কেন বাড়তি টাকা দেবেন? চেষ্টা করুন রেডিমেড খাবারও যতটা সম্ভব কম কিনতে।

৭) যে মশলা বা খাবারগুলো কালেভদ্রে লাগে, সেগুলো কম কম করেই কিনুন। কম কিনতে লজ্জা পাবেন না। যেটুকু একবারে শেষ হয়ে যায়, সেটুকুই কিনবেন।

৮) আপনার যেটুকু বাজেট, তার চাইতে কম টাকা নিয়ে যান। যেমন ধরুন আপনার সাপ্তাহিক বাজারের বাজেট ২০০০ টাকা। সেখান থেকে ২০০ টাকা তুলে রাখুন। কিছু হলেই এই ২০০ টাকায় হাত দেবেন না প্রতিজ্ঞা করে ফেলুন। বরং প্রয়োজনে কোন কম প্রয়োজনীয় পণ্য কম কিনবেন। এতে কিছু টাকা নিশ্চিত বাজবে। এই তাকাতি একটি ব্যাংকে জমিয়ে রাখতে পারেন। মাস শেষে অনেকগুলো টাকা হবে।

৯) মৌসুমের প্রথম শাক সবজি অযথা কিনতে যাবেন না। তখন দাম থাকে চড়া আর স্বাদেও খুব বেশী পরিপক্ক না। কিছুদিন অপেক্ষা করে কিনুন।

১০) ফলমূল কিনুন দেশি গুলো। যেমন ধরুন, বাজারে বিদেশী আমার পাওয়া যায় আবার দেশিও মেলে। দেশি পেয়ারা পাওয়া যায় আবার চড়া মূল্যের থাই পেয়ারাও মেলে। দেশীগুলো কিনুন।

১১) যে কোন পণ্যের ক্ষেত্রেই চেষ্টা করুন দেশী পণ্যটি কিনতে। এতে অনেকগুলো টাকা সহজেই বাঁচে।

১২) দরদাম না করে, একাধিক দোকান যাচাই না করে কখনোই পণ্য কিনবেন না।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার