বাংলাদেশ থেকে ৬০০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ নিচ্ছে সৌদি আরব

Img

বাংলাদেশ থেকে ৬০০ জিবিপিএস (গিগাবিটস পার সেকেন্ড) ব্যান্ডউইথ নিচ্ছে সৌদি আরব। এ বিষয়ে দুই দেশের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে বলে বুধবার (১২ মে) রাতে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেডের (বিএসসিসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক মশিউর রহমান।

মঙ্গলবার (১১ মে) বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে এই চুক্তি সম্পাদিত হয়। মশিউর রহমান জানান, সৌদি টেলিকম কোম্পানির (এসটিসি) সঙ্গে ব্যান্ডউইথ রফতানির চুক্তি করেছে বিএসসিসিএল।

জানা গেছে, এই চুক্তির ফলে বাংলাদেশ এককালীন ৩ দশমিক ৬ মিলিয়ন ডলার পাবে সৌদি আরবের কাছ থেকে। এছাড়া প্রতি বছর রক্ষণাবেক্ষণ চার্জ বাবদ বাংলাদেশ পাবে ১ লাখ ২০ হাজার ডলার। রক্ষণাবেক্ষণ বাবদ প্রাপ্ত অর্থ সরাসরি পাবে না বাংলাদেশ। বাংলাদেশকে সাবমেরিন ক্যাবলের রক্ষণাবেক্ষণ বাবদ যে অর্থ কনসোর্টিয়ামকে পরিশোধ করতে হয়, সেখান থেকে এই পরিমাণ অর্থ বাদ যাবে। সৌদি আরব তাদের দেশের প্রান্ত থেকে এই সক্ষমতা ব্যবহার করবে।

চুক্তির মেয়াদ সম্পর্কে জানতে চাইলে বিএসসিসিএল’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, ‘চুক্তির মেয়াদ সাবমেরিন ক্যাবলের লাইফ টাইম, যদি না কোনও পক্ষ চুক্তি বাতিল করতে চায়। এক হিসাবে দেখা গেছে, সাবমেরিন ক্যাবলের (সি-মি-উই-৫) লাইফ টাইম এখনও ২০ বছর রয়েছে।

মশিউর রহমান আরও বলেন, ‘‘সৌদি আরব যে ব্যান্ডউইথ নেবে, তা আমাদের ‘আন-ইউজড ক্যাপাসিটি’, যাকে বলা হয় ‘ডার্ক ক্যাপাসিটি’। এই ক্যাপাসিটি ইনঅ্যাক্টিভ অবস্থায় রয়েছে, ওরা অ্যাক্টিভেট করে নেবে। আমাদের কিছুই করতে হবে না।’

সৌদি আরব এই ব্যান্ডউইথ নিলেও দেশে ইন্টারনেট ব্যবহারে কোনও প্রভাব পড়বে না বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।
 

পূর্ববর্তী সংবাদ

পুষ্টিতে ভরপুর জাম্বুরা

জাম্বুরা আমাদের দেশীয় একটি ফল। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ এই ফলটি আমাদের দেশের সব জায়গাতেই পাওয়া যায়। খুবই সহজলভ্য এই ফলটি কিন্তু অনেক উপকারী।অনেকেই একে বাতাবি লেবু বলে থাকেন। টক কিংবা মিষ্টি স্বাদের এই ফলের রয়েছে বেশ মিষ্টি একটা গন্ধ। জাম্বুরার ভেতরটা রসালো এবং কোষগুলো হলুদ, গোলাপী, লাল হয়ে থাকে। জাম্বুরার খোসা ছাড়িয়ে ভেতরের কোষগুলো খাওয়া হয়ে থাকে। এছাড়াও জুস, ফ্রুট সালাদ, মিষ্টি স্যুপ হিসেবেও খাওয়া যায়।

আসুন জেনে নিই জাম্বুরার পুষ্টিগুণ এবং উপকারীতা সম্পর্কে।

পুষ্টিগুণ: জাম্বুরা ভিটামিন সমৃদ্ধ একটি ফল । খুবই সহজলভ্য এবং কম দামে পাওয়া এই ফল কিন্তু অনেক পুষ্টি সমৃদ্ধ । প্রতি ১০০ গ্রাম জাম্বুরাতে আছে খাদ্যশক্তি ৩৮ কিলোক্যালরি, প্রোটিন ০.৫ গ্রাম, স্নেহ ০.৩ গ্রাম, শর্করা ৮.৫ গ্রাম, খাদ্যআঁশ ৫ গ্রাম, খনিজ লবন ০.২০ গ্রাম, ভিটামিন বি ২০.০৪ মিলিগ্রাম, ভিটামিন সি ১০৫ মিলিগ্রাম।

এছাড়াও এতে আছে রিবোফ্লাবিন, নিয়াসিন, ক্যারোটিন, ভিটামিন বি৬, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম, ম্যাংগানিজ, ফসফরাস, পটাসিয়াম, সোডিয়ামের মত উপকারী সব খনিজ উপাদান। যা আমাদের শরীরের অনেক উপকার করে থাকে।

উপকারীতা: 

১। জাম্বুরাতে ভিতামিন সি ও বি থাকায় এটি আমাদের হাড়, দাঁত, ত্বক ও চুলের পুষ্টি যোগায় এবং ভালো রাখতে সাহায্য করে। স্ক্যাভি, জ্বর, মুখের ঘা ইত্যাদি সমস্যার জন্য জাম্বুরা বেশ উপকারী। এছাড়াও এতে থাকা ভিটামিন সি আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

২। এতে থাকা পটাসিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়ামের মত উপকারী খনিজ উপাদান আমাদের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। এছাড়াও এতে থাকা ভিটামিন সি আমাদের রক্তনালীর সংকোচন প্রসারণ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে থাকে।

৩। জাম্বুরাতে ক্যালরি এবং ফ্যাট কম থাকায় ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য এটি ভীষণ রকমের উপকারী। এ ফলটি ওজন কমাতে সাহায্য করে। তাই যারা একটু মোটা বা অতিরিক্ত ওজন নিয়ে ভাবনায় আছেন তাদের জন্য জাম্বুরা অনেক উপকারী।

৪। জাম্বুরা আমাদের ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা অনেক কমায় । কারণ জাম্বুরাতে আছে প্রচুর পরিমাণে বায়োফ্লভনয়েড। যা আমাদের ব্রেস্ট ক্যান্সারের হাত থেকে রক্ষা করে থাকে।

৫। জাম্বুরা আমাদের শরীরে থাকা খারাপ কোলেস্টরল নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। এর ফলে বিভিন্ন ধরনের হৃদরোগের হাত থেকে রক্ষা করে জাম্বুরা। তাই অনেকেই একে কোলেস্টরল নিয়ন্ত্রক ফল হিসেবে বলে থাকেন।

৬। আমাদের শরীরের যেকোন ধরনের কাটা বা ক্ষত সারাতে জাম্বুরার জুড়ি নেই। যকৃত, পাকস্থলী, দাঁত এবং দাঁতের মাড়ির সুরক্ষায় জাম্বুরা অতুলনীয়। এছাড়াও এতে থাকা অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আমাদের বয়স ধরে রাখতে সাহায্য করে এবং অল্প বয়েসে ত্বক বুড়িয়ে যাওয়া থেকে বাঁচায়।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার