বাংলাদেশের প্রতিটি ঘরেই জাতির পিতার ছবি রাখার অনুরোধ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

Img

বাংলাদেশে প্রত্যেকের ঘরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি রাখার অনুরোধ জানান  তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মুরাদ হাসান এর।

ভারতে মহাত্মা গান্ধীর ছবি যেমন প্রতিটি ভারতীয় নাগরিকের ঘরে আছে, ঠিক তেমনই বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ছবি বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের ঘরে থাকতেই হবে, থাকা উচিত বলে তিনি মনে করেন। 

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন,  বাংলাদেশ সবার ঘরে ঘরে থাকুক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি এই আমার প্রার্থনা এই আমার অনুরোধ এই আমার আহ্বান।

আজ সচিবালয়ে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে ব্রিফিংকালে তিনি এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

পূর্ববর্তী সংবাদ

ময়মনসিংহে স্কুল শিক্ষককের বিরুদ্ধে শিশু ধর্ষণের অভিযোগ

ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলায়  ৮ বছরের শিশুকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় নুরুল ইসলাম (৬৫) নামে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) রাত ১১টার দিকে শিশুর বাবা বাদী হয়ে এ মামলা করেন।

অভিযুক্ত নুরুল ইসলাম উপজেলার আচারগাঁও ইউপির সিংদই গ্রামের বাসিন্দা।

তিনি কিশোরগঞ্জ জেলার হোসেনপুর উপজেলার এলাহী নেওয়াজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।

শিশুর পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ৫ সেপ্টেম্বর বাড়িতে কেউ না থাকায় নুরুল ইসলাম মাস্টার ঘরে ঢুকে ওই শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। সে কান্নাকাটি শুরু করলে তাকে আমড়া খাওয়াবে বলে নুরুল ইসলাম চলে যান।

শিশুর বাবা রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) রাতে নুরুল ইসলাম মাস্টারের বাড়িতে ও স্থানীয় মাতব্বরদের বিষয়টি জানালেও কেউ গুরুত্ব দেননি। এ ঘটনায় এলাকায় জানাজানি হলে নুরুল ইসলাম মাস্টারের চাচাতো ভাই হারিছ, ভাতিজা আমিনুল, সাবেক মেম্বার আ. রশিদ এসে শিশুর বাবাকে প্রথমে ৩ হাজার পরে ৫ হাজার টাকা দিয়ে চুপ থাকতে বলেন।

এদিকে, ওই শিশুর শারীরিক অবস্থা খারাপ হতে থাকলে সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান তার পরিবার। কর্তব্যরত চিকিৎসক বিষয়টি বুজতে পেরে নান্দাইল থানায় জানান। পরে পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে ওই শিশুকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় ওই দিন রাত ১১টার দিকে ওই শিশুর বাবা নান্দাইল থানায় মামলা করেন।

নান্দাইল মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ওবায়দুর রহমান বলেন, ওই শিশুকে আজ (মঙ্গলবার) সকালে ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে। মামলার অভিযুক্ত আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার