বাংলাদেশের করোনা ভ্যাকসিনের স্বীকৃতি দিলো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

বিষয়: করোনাভাইরাস
Img

দেশীয় প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক লিমিটেডের আবিস্কৃত তিনটি করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনকে গত ১৫ অক্টোবর তালিকাভূক্ত করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

শনিবার (১৭ অক্টোবর) গ্লোব বায়োটেক লিমিটেড এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

এর আগে দেশীয় প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেকের তৈরি ভ্যাকসিন করোনাভাইরাসকে প্রতিরোধ করতে সক্ষম বলে জানিয়েছিল মার্কিন মেডিক্যাল জার্নাল বায়োআর্কাইভ। ৩০ সেপ্টেম্বর বায়োআর্কাইভ মেডিক্যাল জার্নালে এ সংক্রান্ত তথ্য প্রকাশ করা হয়।

সংবাদ সম্মেলন করে গ্লোব জানিয়েছিল, তাদের ভ্যাকসিন প্রাণীদেহে প্রয়োগের প্রথম ধাপে সাফল্য পেয়েছে। সম্প্রতি প্রতিষ্ঠানটি দাবি করছে, তাদের ভ্যাকসিন প্রাণীদেহে দ্বিতীয় দফায় প্রয়োগেও মিলেছে সাফল্য। জীববিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখার গবেষণা নিবন্ধ ছাপানোর প্রিপ্রিন্ট সার্ভার ‘বায়ো আর্কাইভে’ তাদের এই সাফল্যের খবর প্রকাশিত হয়েছে বলে জানানো হয়। 

গ্লোবের গবেষকরা জানান, তাদের ভ্যাকসিন প্রাণীদেহে অ্যান্টিবডি তৈরির মাধ্যমে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে সক্ষম।

গত ১ অক্টোবর গ্লোব বায়োটেক লিমিটেডের গবেষণা ও উন্নয়ন (আরঅ্যান্ডডি) বিভাগের প্রধান ড. আসিফ মাহমুদ জানান, তারা তাদের ভ্যাকসিনের নাম দিয়েছেন ‘ব্যানকোভিড’, যা মূলত ডি৬১৪জি ভ্যারিয়েন্টস এম-আরএনএভিত্তিক ভ্যাকসিন। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে এই ঘরানার মধ্যে ‘ব্যানকোভিড’ই প্রথম ভ্যাকসিন। আর এটিই প্রাণীদেহে দ্বিতীয় ধাপে প্রয়োগ করে সাফল্য মিলেছে। কোল্ড স্প্রিং হারবার ল্যাবরেটরি পরিচালিত ‘বায়ো আর্কাইভ’ সার্ভারে তাদের এ সংক্রান্ত গবেষণা নিবন্ধ ছাপা হয়েছে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার