বরিশালে ত্রিমুখী সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত ৩৫

Img

বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়েছে। এসময় পুলিশ ৪৬ রাউন্ড গুলি ছুঁড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলে ওই দুই পক্ষের সাথে পুলিশের ত্রিমুখী সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে পুলিশের ৭ সদস্যসহ অন্তত ৩৫ জন আহত হয়। শুক্রবার রাত ১০টার পর থেকে ঘণ্টাব্যাপী এই সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, আচরণ বিধি ভঙ্গের দায়ে শুক্রবার বিকেলে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী রুমা সরদারকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এতে তার সমর্থকদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

অপরদিকে প্রতিপক্ষের আর্থিক দণ্ডে নৌকা মার্কার প্রার্থী কাজী আব্দুল হালিম মিলন চৌধুরীর সমর্থকরা উল্লাস প্রকাশ করে। বিষয়টি ভালোভাবে নিতে পারেনি স্বতন্ত্র প্রার্থী রুমা সরদারের সমর্থকরা।

এ ঘটনা নিয়ে দুই পক্ষ রাত ৯টার পর দক্ষিণ উলানিয়ার লালগঞ্জ বাজারে মুখোমুখি অবস্থান নেয়।

একপর্যায়ে তাদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ বেঁধে যায়। উভয় পক্ষ পাল্টাপাল্টি ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। পুলিশ ঘটনাস্থলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালায়।

অবস্থা বেগতিক দেখে পুলিশ ৪৬ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে। এসময় উভয় পক্ষ পুলিশের ওপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। ত্রিপক্ষীয় সংঘর্ষে দুই প্রার্থীর অন্তত ২৭-২৮ জন সমর্থক এবং ইটের আঘাতে ৭ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়। এদের মধ্যে তিন পুলিশ সদস্যকে মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

জেলা পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম জানান, পুলিশ কঠোরভাবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেছে। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এই নির্বাচন ঘিরে আর যাতে পরিস্থিতির অবনতি না হয় সেদিকে পুলিশ কঠোর সতর্কাবস্থানে রয়েছে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার