ফেনী সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নৈশ প্রহরী শফি উল্যাহকে (৬৫) হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন আসামী মেহেদী হাসান রাব্বি (১৬)। আসামী লক্ষীপুর জেলার রায়পুর থানার জয়নাল আবেদীনের ছেলে। বর্তমানে ফেনী পৌরসভার বারাহিপুরে তালতলায় ভাড়া বাসায় থাকেন। মঙ্গলবার (১১ জুন) ফেনীর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম জাকির হোসাইনের আদালতে এ জবানবন্দি গ্রহন করা হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো. মঈন উদ্দিন জানান, অভিযান চালিয়ে হত্যা মামলার অন্যতম আসামী মেহেদী হাসান রাব্বিকে গত সোমবার গ্রেপ্তার করা হয়। পরদিন মঙ্গলবার দুপুরে তাঁকে আদালতে হাজির করা হয়। হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন তিনি। জবানবন্দিতে জানান- এ হত্যাকান্ডের ঘটনায় সোহেল প্রকাশ ঘোড়া সোহেলসহ আরো একজন জড়িত রয়েছে। ঘটনার দিন সন্ধ্যায় নৈশ প্রহরীকে একা পেয়ে তাঁর ভাড়াবাসা থেকে নগদ ৪০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। ওই সময় তাঁদের চিনে ফেলেন নিহত নৈশ প্রহরী। চিনে ফেলায় আসামীরা নৈশ প্রহরীকে গলাকেটে হত্যা করে পালিয়ে যায়। হত্যাকান্ডের পর আসামী মেহেদী হাসান রাব্বি ১০ হাজার টাকা ভাগে পায়।

উল্লেখ্য; গত ৩০ মে ফেনী সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নৈশ প্রহরী শফি উল্যাহকে তাঁর নিজ বাসায় আসামীরা টাকার জন্য হত্যা করে।