প্রেম আমার মালয়েশিয়া' স্লোগানে ৬১তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপন

শেখ সেকেন্দার আলী | নিজস্ব প্রতিবেদক : অগাস্ট ৩১, ২০১৮

প্রেম আমার মালয়েশিয়া' লাখো কণ্ঠে গেয়ে উঠলো প্রেম আমার মালয়েশিয়া। ইয়াং ডি পাটুয়ান আগং রাজা সুলতান মুহাম্মদ ভির আগমনের মধ্য দিয়ে উদ্বোধন করা হয় স্বাধীনতা দিবস ৬১ ।  জাতীয় সংগীত নেগারাকু ,কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে

মালয়েশিয়ার ডাতারান  পুত্রাজায়ায় লক্ষ লক্ষ মানুষের উপস্থিতিতে স্বাধীনতা দিবস পালন করলেন মালয়েশিয়া। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আধুনিক মালয়েশিয়ার রূপকার তুন ডাঃ মাহাথির মোহাম্মদ, স্ত্রী প্রধানমন্ত্রী তুন ডাঃ সিতি হাচমাহ মোহাম্মদ আলী, ডেপুটি প্রাইম মিনিস্টার দাতুক সেরি ডাঃ অন আজিজা অন ইসমাইল ও স্বামী দাতুক সেরি আনোয়ার ইব্রাহিম। দেশ ও জাতির কল্যাণে কাজ করার জন্য এ সময় প্রধানমন্ত্রী সবার প্রতি আহ্বান জানান। প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন মালয়েশিয়া থেকে দুর্নীতিকে বিদায় দিয়ে আমাদের স্বপ্নের মালয়েশিয়া গড়ে তুলতে হবে। এছাড়াও মালয়েশিয়ার ১৩ টি প্রোদেশে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে পালিত হয় স্বাধীনতা দিবস।মালয়েশিয়ার ইতিহাসে শ্রেষ্ঠতম গৌরব ও অহঙ্কারের দিন এটি। পৃথিবীর মানচিত্রে নিজস্ব ভূখণ্ড নিয়ে মালয় জাতির আত্মপ্রকাশ ঘটে এ দিনে। ১৯৫৭ সালের ৩১ আগস্ট ব্রিটিশদের কাছ থেকে রক্তপাতহীন প্রক্রিয়ায় স্বাধীনতা অর্জন করে দেশটি।

আজ থেকে ৪০ হাজার বছর আগেও মালয় অঞ্চলে মানুষ বসবাসের নিদর্শন পাওয়া যায়। সুদূর অতীতে এ অঞ্চলে হিন্দু-বৌদ্ধ শাসকদের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র রাজ্য প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৩ শতকে এই উপদ্বীপে ইসলামের আগমন ঘটে। ১৫ শতকে মালাক্কান সালতানাত প্রতিষ্ঠিত হয়। অর্থনৈতিক কারণে মধ্য এশিয়া, ভারত ও আরবদের সঙ্গে মালয়ের সংযোগ স্থাপিত হয়। ১৫১১ সালে পর্তুগিজ নাবিক অ্যাফোনসো দ্য আলবুকার্ক এই অঞ্চলে নৌ অভিযান পরিচালনা করেন। এটাই ছিল মালয় উপদ্বীপে প্রথম ইউরোপীয় অভিযান। ১৫৭১ সালে এই অঞ্চলে স্প্যানিশদের আগমন ঘটে। ব্রিটিশরা প্রথম মালয় উপদ্বীপে আসে ১৭ শতকে। ১৮৯৫ সালে ফেডারেটেড মালয় স্টেটস গঠিত হয়। অর্থনৈতিক কারণেই ব্রিটিশ ঔপনিবেশিকরা ছাড়াও ডাচ ও ফরাসীদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু ছিল মালয়েশিয়া।

ব্রিটিশরা প্রথম বসতি স্থাপন করে মালয়েশিয়ার পেনাঙে। প্রথম ১৮১৯ সালে মালয় উপদ্বীপে পুরোপুরি ব্রিটিশ শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়। এ সময় মালয়ের বিভিন্ন এলাকার শাসক সুলতানদের সঙ্গে ব্রিটিশ শাসকদের সুসর্ম্পক ছিল। ১৮২৪ সালে মালয়ের ওপর ব্রিটিশ শাসন পাকাপোক্তের জন্য অ্যাংলো-ডাচ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এই চুক্তি অনুসারে মালয় দ্বীপমালা দুইভাগে ব্রিটেন ও নেদারল্যান্ডের মধ্য ভাগ করা হয়। ১৮২৬ সালের মধ্যে ব্রিটিশরা পেনাং, মালাক্কা, লাবুয়ান দ্বীপের ওপর পরিপূর্ণ শাসন প্রতিষ্ঠা করে। সেখানে প্রতিষ্ঠা হয় ব্রিটিশ কলোনি। ১৮৬৭ সাল পর্যন্ত ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি এখানে সরাসরি শাসন করে। ১৮৭৪ সালে স্বাক্ষরিত পাংকর চুক্তি অনুসারে বিভিন্ন রাজ্যের সুলতানরা ব্রিটিশ এলাকার শাসনের সুযোগ পায়।

তথ্য:

বিভাগ:

প্রকাশ: অগাস্ট ৩১, ২০১৮

প্রতিবেদক: শেখ সেকেন্দার আলী

পড়েছেন: 970 জন

মন্তব্য: 0 টি