প্রবল ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের অবস্থান দেখুন (লাইভ)

Img

ঘূর্ণিঝড় ‘আম্ফান’ অবস্থান করছে দক্ষিণপূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন দক্ষিণপশ্চিম বঙ্গোপসাগর এলাকায়। ঘূর্ণিঝড়টি উত্তর দিকে অগ্রসর ও ঘনীভূত হচ্ছে। যেটি ক্রমশই গতি বেড়ে ভয়াবহ হচ্ছে। এরইমধ্যে ঘূর্ণিঝড়টি ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২০০ কিলোমিটার পর্যন্ত গতি হতে পারে বলে জানিয়েছে ভারতের আবহাওয়া দফতর।

এদিকে দেশের আবহাওয়া অধিদফতরের রোববার সকাল ৬ টার বিশেষ বুলেটিনে জানানো হয়েছে, চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দর থেকে ১১৫০, কক্সবাজার সমুদ্র বন্দর থেকে ১০৯০, মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ১০৭০ এবং পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ১০৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছিল ঘূর্ণিঝড় ‘আম্ফান’।

এটি শিগগিরই আরো ঘণীভূত হয়ে উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পায়ে। পরবর্তীতে দিক পরিবর্তন করে উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে খুলনা ও চট্টগ্রামের মধ্যবর্তী অঞ্চল দিয়ে ১৯ মে (মঙ্গলবার) শেষরাত থেকে ২০ মে (বুধবার) বিকেল/সন্ধ্যার মধ্যে বাংলাদেশের উপকূল অতিক্রম করতে পারে।

 

পূর্ববর্তী সংবাদ

করোনায় আরো এক পুলিশ সদস্যের মৃত্যু

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে কাজ করতে গিয়ে প্রাণ হারালেন পুলিশের আরো এক সদস্য। উপপরিদর্শক (এসআই) মো. মজিবুর রহমান তালুকদার (৫৬) আজ সোমবার সকালে কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে মারা যান। মজিবুর স্পেশাল ব্রাঞ্চের (সিটি এসবি) পল্টন জোন-১-এ কর্মরত ছিলেন। 

সোমবার পুলিশ সদর দফতরের থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন উপ মহাপরিদর্শক (এআইজি) সোহেল রানা।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনাভাইরাস পজিটিভ হওয়ায় গত ১১ মে তাকে রাজধানীর ইমপালস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) স্থানান্তর করা হয়। পরে অবস্থার আরো অবনতি হলে তাকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় তিনি সোমবার সকাল ৮ টা ৫১ মিনিটে কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে মারা যান।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, তার স্থায়ী ঠিকানা সিরাজগঞ্জ জেলার কাজিপুর থানার তারাকান্দি গ্রামে। বর্তমানে তিনি বগুড়া জেলার শাজাহানপুর থানার সাখ পাড়া গ্রামে বসবাস করেন। স্ত্রী, দুই পুত্র ও এক কন্যাসহ বহু আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন তিনি।

পুলিশের ব্যবস্থাপনায় তার মরদেহ বগুড়া পাঠানো হয়েছে। সেখানে জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে ধর্মীয় বিধান অনুযায়ী মরদেহ দাফন করা হবে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার