পাইকগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

Img

খুলনার পাইকগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা নিতিশ চন্দ্র গোলদারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মাধ্যমে টাকা আত্মসাতের ঘটনায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকসহ ৮ দপ্তরে অভিযোগ করছেন ভুক্তভোগী স্বাস্থ্য সহকারী কর্মকর্তাগণ।

এক লিখিত অভিযোগে ঢাকা মহাখালীস্থ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক, খুলনা বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য), খুলনা সিভিল সার্জন, খুলনা বিভাগীয় দুর্নীতি দমন কমিশন, পাইকগাছা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন তারা।

মাঠ পর্যায়ের কর্মরত সাধারণ স্বাস্থ্য সহকারী ও পরিবার পরিকল্পনার কাজে নিয়জিত সহকারীদের নামে বরাদ্দকৃত টাকা আত্নসাতের অভিযোগে জানাযায়, করোনাকালীন বিভিন্ন সময়ে ঝুকিপূর্ণ বিভিন্ন বিষয়ে সরকার টাকা বরাদ্দ দিলেও তা তাদের ভাগ্যে জোটেনি।

উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নীতিশ চন্দ্র গোলদার কোভিড-১৯ এর বরাদ্দকৃত অর্থ কাটাছেড়া করে বিতারণ করেন। ২০২১ সালের ৬ ও ৮ নভেম্বর শুধুমাত্র এই দুদিনের বরাদ্দ ১৩ হাজার ৫ শ টাকার স্থলে সহকারীদের দেয়া হয়েছে ৯ হাজার ৭ শ টাকা। এরপর ওয়ার্ড ভিত্তিক করোনা টিকাদানে বরাদ্দ ৩২ হাজার ৮শ টাকার পরিবর্তে ১৭ হাজার টাকা প্রদান করতে চাচ্ছেন বলে আভিযোগে উল্লেখ করেন স্বাস্থ্য সহকারীরা।

তাদের দাবি, অফিস সহকারী নারগিস বানু'র সহযোগিতায় দুর্নীতি ও অনিয়ম করে চলেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নীতিশ চন্দ্র গোলদার। যা তদন্ত হলে বেরিয়ে পড়বে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার দুর্নীতির সব কাহিনী।

এ বিষয়ে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নীতিশ চন্দ্র গোলদার দেশের বাইরে থাকায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

খুলনা জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ সুজায়েত আহমেদ বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, তিনি চিকিৎসার জন্য ভারতে অবস্থান করছেন। দেশে আসলে তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার