পাইকগাছায় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্থ ৬৫ পরিবারকে নগদ অর্থ ও সবজি বীজ প্রদান

Img

পাইকগাছায় বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি খুলনা জেলা ইউনিট'র উদ্যোগে ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ ও সবজি বীজ বিতরণ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে উপজেলা মিলনায়তনে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির জেলা সদস্য ডাঃ শেখ মোহাঃ শহীদ উল্লাহ'র সভাপতিত্বে নগদ অর্থ ও সবজি বিতরণে প্রধান অতিথি ছিলেন নির্বাহী অফিসার এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকী। 

এনডিআরটি যুব প্রধান মোস্তফা কামাল এর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির খুলনা জেলা ইউনিট কর্মকর্তা মোঃ মইনুল ইসলাম। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, এনডিডব্লিউআরটি আমির হামজা, আল আমিন শেখ সহ যুব সদস্যবৃন্দ। 

এসময়ে পাইকগাছার দেলুটি ইউনিয়নের গেউয়াবুনিয়ার ৬৫টি পরিবারের মাঝে সাড়ে ৪ হাজার নগদ অর্থ ও ঢেড়স, করলা, লাউ, শসা, মিষ্টি কুমড়া, বরবটি, পুঁইশাক ও লাল শাকসহ ৮ প্রকার সবজি বীজ বিতরণ করা হয়।

পূর্ববর্তী সংবাদ

মালয়েশিয়া সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিবের ১২ বছর জেল, ২১০ মিলিয়ন জরিমানা

মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের বিরুদ্ধে আনা দুর্নীতির সব কটি অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত তাকে ১২ বছর কারাদণ্ড ও ২১০ মিলিয়ন রিংগিত জরিমানা করা হয়েছে। যদিও সব অভিযোগে তিনি নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন। 

তার বিরুদ্ধে সাতটি 'মিলিয়ন ডলার' দুর্নীতির মামলা রয়েছে। এর আগে তিনি বিশ্বাস ভঙ্গ, মানি লন্ডারিং এবং ক্ষমতার অপব্যবহার সংক্রান্ত ফৌজদারি মামলায় নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছিলেন। বিচারক  বিচারক মোহামেদ নাজলান মোহামেদ ঘাজালি এর আদালতে এই রায় ঘোষণা করেণ। 

মালয়েশিয়া জাতীয় অনলাইন সংবাদ মাধ্যম হারিয়ান মেট্রো মঙ্গলবার ( ২৮ জুলাই)  এই তথ্য নিশ্চিত করে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। 

রায় ঘোষণার নাজিবের সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া মিটিং ও প্রতিবাদ মিছিল করতে দেখা গেছে।  নাজিব রাজাক এই রায়ের বিরুদ্ধে আজ আপিল করার পর  তা সাথে সাথে আদালতে  নাকচ করে দেওয়া হয়েছে। 

 ওয়ান মালয়েশিয়ান ডেভেলপমেন্ট বারহাদ ওয়ান এমডিবি কেলেঙ্কারির মাধ্যমে মূলতঃ বৈশ্বিক জালিয়াতি এবং দুর্নীতিতে দেশটির সম্পৃক্ততার বিষয়টি বেরিয়ে এসেছে।

তার বিরুদ্ধে অন্যতম অভিযোগ, ওয়ান এমডিবি প্রকল্পের ৪২ মিলিয়ন রিঙ্গিত অর্থাৎ ১০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সমপরিমাণ অর্থ তৎকালীন মালয়েশিয়ান প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্টে পাঠানো হয়েছিল।

নাজিব রাজাক ২০০৯ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় ছিলেন।

বিচারক মোহামেদ নাজলান মোহামেদ ঘাজালি কুয়ালালামপুর হাইকোর্টকে বলেছেন, "সব সাক্ষ্যপ্রমাণ বিবেচনা করে দেখা যাচ্ছে প্রসিকিউশন সন্দেহাতীতভাবে তার বিরুদ্ধে সব অভিযোগ প্রমাণ করতে সমর্থ হয়েছে।

২০১৮ সালে নির্বাচনে নাজিব রাজাকের পরাজয় বরণ করার পর মাহাথির মোহাম্মদ ক্ষমতায় আসেন।  তার বিরুদ্ধে আনা দুর্নীতির সব অভিযোগ অস্বীকার করে নাজিব রাজাক দাবি করেছেন, তার তৎকালীন অর্থনৈতিক উপদেষ্টাদের বিশেষ করে পলাতক ধনকুবের ঝো লো'র মাধ্যমে তিনি 'মিসলেড' মানে ভুল পথে পরিচালিত হয়েছিলেন।

ঝো লোর বিরুদ্ধে মালয়েশিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্র দুই দেশেই আদালতে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে।

 

   

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার