পাইকগাছার জমি দখল ও হুমকি অভিযোগ, থানায় জিডি

Img

খুলনা পাইকগাছা উপজেলার লতা ইউপি মেম্বর বিশ্বজিতের প্রত্যক্ষ মদদে জমি জবর দখল ও হুমকির অভিযোগে পাইকগাছা থানায় জিডি করেছে ভুক্তভোগী মিজানুর।

বুধবার তিনি জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে এ জিডি করেন।

জিডি সূত্রে জানা গেছে, ওই এলাকার ভুক্তভোগী মিজানুর রহমান খুলনা পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক ইজারাপ্রাপ্ত আঁধার মানিক মৌজায় পোল্ডার নং ১৮/১৯ ও এলএ, কেস নং ০৮/৬৫-৬৬ এর ৬১২ দাগে ডিসিআর প্রাপ্ত হয়ে দীর্ঘদিন এফসিডিআইয়ের ২৫ শতক জমি ভোগদখল করে আসছেন। কিন্তু এলাকার প্রভাবশালী ইউপি সদস্য বিশ্বজিতের মদদে এলাকার শামছুর গাজী ও ভাইপো মনিরুলসহ স্বদলবলে লোকজন দিয়ে জমিটি জোর পুর্বক জবর দখল করে নেয়।

এ ঘটনায় অসহায় মিজানুর পাইকগাছা নির্বাহী আদালতে প্রতিপক্ষদের বিরুদ্ধে ১৪৪ ধারার একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে থানা ওসিকে নির্দেশ দেন বিজ্ঞ আদালত। কিন্তু প্রতিপক্ষ মনিরুল তা মানেননি। ইউপি সদস্য বিশ্বজিতের হুকুমে জবরদখল কায়েমসহ ও উক্ত ১৪৪ ধারায মামলা প্রত্যাহারের জন্য হুমকি প্রদর্শন করে।

শুধু তাইনয়, মনিরুল গং মিজানুর ও তার পরিবারকে জীবনে শেষ করার হুমকি প্রদর্শন করে। এ ঘটনায় অসহায় মিজানুর বুধবার ০৪/০৩/২০ তাং পরিবার ও নিজের নিরাপত্ত্বার জন্য পাইকগাছা থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। যার নং ১৮০ তাং ০৪/০৩/২০ ইং।

উল্লেখ্য বিবাদমান বিষয়টি নিয়ে সম্প্রতি কপিলমুনি পুলিশ ফাঁড়িতে অভিযোগ করেন মিজানুর। সে সময় কপিলমুনি পুলিশ ফাঁড়িতে বসাবসি হলে ওই এলাকার মেম্বর বিশ্বজিতের উপর দ্বায়িত্ব দেন সংশ্লিষ্ট প্রশাসন। কিন্তু প্রশাসনের কোন নির্দেশনা মানেননি তারা।

জানাগেছে, গত রবিবার মেম্বর বিশ্বজিৎসহ স্থানীয়রা পুলিশ ফাঁড়িতে বসে শান্তিপূর্ণ নিঃষ্পত্ত্বির আশ্বাস দিয়ে ফাঁড়ি ত্যাগ করে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে আইল ও সীমানা নির্ধারণ পূর্বক শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে  নির্দেশ প্রদান করলেও মেম্বর বিশ্বজিৎ এর কারিশমায় মনিরুল গং পরদিন সোমবার সকালে ৩০/৩৫ জন লেবার নিয়ে জবরদখল করে বেড়িবাঁধ উঠিয়ে দেন। খবর পেয়ে ফাঁড়ি কর্মকর্তা ইন্সপেক্টর সঞ্জয় দাশের নির্দেশে এ এস আই প্রভাষ সহ সঙ্গীয় ফোর্স ও স্থানীয় সাংবাদিকরা ঘটনাস্থলে গেলে টের পেয়ে সরে পড়ে তারা। এ সময় ইউপি সদস্য বিশ্বজিৎ এর মোবাইল নাম্বারে যোগাযোগ করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। ওই সময় হাফিজুল নামের ব্যাক্তি বিষয়টি নিয়ে দ্বায়িত্ব নিলেও কোন কাজ হয়নি বরং তারা অসহায় মিজানুরের জমিতে বেঁড়িবাধ দিয়ে দখল করে নেয় প্রতিপক্ষ শামছুর গাজী ও মনিরুল গংরা। 

এদিকে সৃষ্ট বিষয়ে কপিলমুনি পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ ইন্সপেক্টর সঞ্জয় দাশ জানান, ঘটনা সঠিক এবং ওই এলাকার মেম্বর বিশ্বজিৎ  এগুলো করছে। ফাঁড়ি থেকে ঘটনাস্থল দুরবর্তী হওয়ায় তাৎক্ষণিক যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার